প্রাক্তন জি সাংবাদিককে খোলা চিঠি

প্রিয় দীপক, আপনার সঙ্গে আমার কোনব্যক্তিগত পরিচয় নেই তবু আপনার মানসিক অবস্থানের সঙ্গে আমার পরিচয় আছেই বলেই আমার মনে হচ্ছে। যেভাবে আপনাকে চাকরি থেকে ইস্তফা দিতে হয়েছে সেই পরিস্থিতির মুখোমুখি একাধিকবার আমাকে হতে হয়েছে আমাকে। আপনি হয়তো জানেন না,  আপনি যে সংস্থায় কর্মরত ছিলেন সেই সংস্থার অধীন বাংলা নিউজ চ্যানেলে এই প্রতিবেদক এক সময় কর্মরত ছিল। আপনি ইস্তফা পত্রে লিখেছেন জীবনে কোন কোন সময় আসে যখন একটা অবস্থান জানান দিতে হয় ।  সিঙ্গুর -নন্দীগ্রামের  ঘটনার সময় ওই রকম মুহূর্তের মুখোমুখি হয়েছিল এই প্রতিবেদকও । কর্তৃপক্ষের তরফে বলা হয়েছিল মানষের স্বতঃস্ফূর্ত বিক্ষোভকে নয় , গুরুত্ব দিতে হবে প্রশাসনের দৃঢ়তাকেই। গুলিবিদ্ধ মানুষের খবরকে এড়িয়ে প্রশাসন যে বাধ্য হয়ে গুলি চালিয়েছে তা বলতে হবে প্রতিবেদনে। সেই মুহূর্তে মনে হয়েছিল এটা অন্যায়। আমাকেও নিতে হয়েছিল অবস্থান । এর পর পেশাগত জীবন খুব মসৃন হয়েনি। যদিও একাধিক চ্যানেলে কাজ করেও সাংবাদিকতার বোধকে সম্প্রসারিত করতে সক্ষম হইনি। আমরা এখনও প্রচলিত বৃত্তের বাইরে সাংবাদিকতার নীতি নৈতিকতার প্রসারতি করতে প্রয়াসী রয়েছে। ইস্তফাপত্রে আপনি যা লিখেছেন প্রত্যাশা করবো জীবনে তা মেনে চলবেন। সংখ্যায় আমরা কম, কিন্তু সত্যের শক্তি কোন দিনই সংখ্যার উপর নির্ভর করেনি। ভাল থাকবেন, অন্তত এই ভন্ড, মেকি নীতিহীন সাংবাদিক অধ্যুষিত লুম্পেন করপোরেট জগতে যতটা ভাল থাকা যায় আরকি!

                     শুভেচ্ছা সহ 

                     অনুপম কাঞ্জিলাল