জল চাই! তাই ১৪৪!

0
2

অনাহারে নাহি খেদ,বেশি খেলে বাড়ে মেদ । হীরক রাজার দেশে এটাই নিদান ছিল । ডিজিটাল ইন্ডিয়াতেও প্রায় এমন ধারা নিদান মহারাষ্ট্রে । জল নেই । খেত শুকিয়ে কাঠ । গলা ভেজানোর মতো ২ ফোঁটা জলও এখন মহার্ঘ লাতুরে । তবে এসব কথা বলা বারণ । কারণ গোটা জেলায় জারি ১৪৪ ধারা । প্রশাসনিক যুক্তি, তেষ্টায় রাশ টানতে না পারলে দাঙ্গা বাঁধতে পারে । খরা প্রতিবছরই নিয়ম করে আসে । মাটির নিচের জলস্তর নামতে নামতে ধরাছোঁয়ার বাইরে । অথচ পেটের তাগিদে মাঠে বীজ বুনতে হয় কৃষককে । ফসলের আশায় নেওয়া ঋণের বোঝায় নুয়ে পড়ে পিঠ । ঋণের ফাঁসে চলতি বছরেই আত্মঘাতী হয়েছেন অন্তত ১০জন কৃষক । সরকার মানেনি সেকথা । মানে না । তাহলে লাতুরের সাধারণ মানুষ কী করবেন? সেকথা ভাবার সময় নেই সরকারের । কারণ ‘জাতীয়তা’র জোড়াতাপ্পি দিয়ে শাসনের রশি হাতে রাখার তাদের একমাত্র কাজ । মানুষের জন‍্য জলের বন্দোবস্ত করা সেখানে গৌন । কিন্তু নাগরিকের ন্যূনতম অধিকার রক্ষা কি জাতীয়তাবাদের মধ‍্যে পড়ে না? না কি ভারত-পাক ক্রিকেট ম‍্যাচের মেঠো উন্মাদনাই শুধু জাতিরক্ষার একমাত্র কেন্দ্র ও পরিধি?