অনুদান কেন স্টিংয়েই তো ধরা পড়েছে ঘুষের কথা

সংসদীয় রাজনীতিিতে নীতি আদর্শের বোধ হয় কোন স্থান নেই। তাই কেউ ঘুষ নিয়ে বলেন অন্যকে ভোট দেওয়ার জন্য প্রতার করছেন কেউ বা নিজের জন্য ভোট চাইতে লজ্জা পাচ্ছেন না, কেউ বা বলেন ওটা ঘুষ না অনুদান। বিরোধীরাও শুধু সুযোগ খোঁজার জন্য বসে রয়েছেন। বিরোধী নেতারা অমনি বলে উঠলেন এই তো প্রমাণিত হল তৃণমূল নেতারা ঘুষ নিয়েছেন। অথচ কেউ বলছেন না সুলতান আহমেদ তো টাকা নেওয়ার সময় স্পষ্ট করে বললেন ওই ভুয়ো কোম্পানির যদি কোন সুপারিশের দরকার হয় তিনি তা করে দেবেন। অথচ এই বিষয়টা কেউ তুলছেন না। আসলে গভীরে যাওয়ার অভ্যাসটাই ভোট সর্বস্ব নেতারা হারিয়ে ফেলেছেন। তাই চিটফান্ড নিয়ে চিত্কার করলেও কেউ কেডি সিংয়ের বিষয়টি নিয়ে খুব একটা মাথা ঘামান না। চিটফান্ড পৈলানের মালিক কী করে জেলের বাইরে তা নিয়ে কেউ প্রশ্ন তোলেন না।