আবারও ভোট, সেই একই চিত্র

রবিবার রাজ্য ৫৬টি আসনে ভোট হয়ে গেল। ছাপ্পা ভোট থেকে, মারধর, ভোট দিতে না দেওয়া  সবই আগের মতই হল। এই নিয়ে দিনভর চলল চাপান উতোর। এরাজ্যে তথা দেশে ভোট হয় সেখানে মনি ও ম্যাসল পাওয়ার থাকে না একথা বিশ্বাস বোধ হয় কেউই করেন না। দুপক্ষই যেন তেন প্রকারে ক্ষমতার স্বাদ পেতে চায়। আর তাদের ব্যাক করে ঠেকাদার. জোতদার, আড়তদার তথা সরকার নির্ভরশীল পুঁজিপতিরা।  মানুষ , অন্তত যাঁরা ভোট দেন তাঁরা ভাবেন ভোট দিয়ে সরকার পাল্টে দিলাম। কিন্তু যাকেই পাল্টান আসলে তারাই  এই অসহনীয় ব্যবস্থাটাকে টিকিয়ে রাখতেই সচেষ্ট হয়। নিজেরা আইন বা নিয়ম না মানুক জনগণকে আইনের শাসন মানতে বাধ্য করেন। নিজেরা সারাবছর ধরে কখনও প্রকাশ্যে কখনও চাপা সন্ত্রাস করলেও জনগণকে আইন হাতে তুলে না নিতে বলেন। আসলে আমাদের দেশের ভোটের যা পরিবেশ তার বাইরে এরাজ্য নয়। এক অনুব্রতকে নিয়ে মিডিয়া যতই বারাবারি করুক অনুব্রতরা রয়েছে পাড়ায় পাড়ায়। দুপক্ষেই। সুতরাং মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার যদি সত্যি রক্ষা করতে হয়ে তাহলে রাস্তা নামতে হবে। দফায় দফায়। চাপ সৃষ্টি করতে হবে সব সরকারের উপরই। কারণ রাজা আসবে রাজা যাবে-…জামা কাপড়ের রঙ বদলয়া দিন বদলায় না।