রেজ্জাকের মন্তব্যকে বিচ্ছিন্ন করে দেখা ঠিক নয়

আবারও বিতর্কে রেজ্জাক মোল্লা। তবে কোন বেফাঁস কথায় নয়। মহিলাদের সম্পর্কে তাঁর সামন্ততান্ত্রিক মানসিকতায় তিনি ফের জাহির করেছেন। এবার আলোচ্য রূপা গাঙ্গলী। রূপারা( দেব সহ) ফচকে নেতা, রূপা লম্বা সিগারেট খায় কার সঙ্গে থাকে তা সবই নাকি জানেন তিনি। রেজ্জাকের এহেন মন্তব্যে একদিকে যেমন মিডিয়া তার সারাদিনের মত রসদ পেয়ে গেল তেমনই চারিদিকে নিন্দের ঝড়ও উঠছে। বিজেপি থেকে সিপিএম  কেউই ইস্যু ছাড়তে রাজি নয়। বিজেপি তো আবার নির্বাচন কমিশনের কাছে নালিশও ঠুকে দিয়েছে। কিন্তু এই রেজ্জাক মোল্লাই কয়েক মাস  আগে পর্যন্ত সিপিএমের রাজ্য কমিটির নেতা ছিলেন। আর বিজেপির রাম সেনা বা বজরঙ দল ভ্যালেনটাইনস ডে বা পার্কে যুবক-যুবতীদের বসা নিয়ে দেশজুড়ে কী কাণ্ডই না করে তা আমাদের সবার জানা। আসলে সব দলেই পুরুষতান্ত্রিক মানসিকতাই প্রধান। আর তাই সিগারেট খাওয়া বা মহিলাদের পোশাক নিয়ে মাঝে মধ্যেই এরকম মন্তব্য শোনা যায়। কেউ বলেন কেউ কেউ মনে করলেও বলেন না। ধূমপান যে খারাপ তা কেউ বলেন না। কারণ হয় নেতাদের বিড়ি – সিগারেটের কারখানা আছে( যেমন এক বিজেপি সাংসদর রয়েছে) অথবা অধিকাংশ দলের  পুরুষ নেতারাই  ধূমপান করে থাকেন। মনে রাখতে হবে এর জেরে অনেকে সময় অন্যেরও ক্ষতি হয়। ফলে সিগারেট খাওয়া কখনওই শুধুমাত্র ব্যক্তিগত রুচির বিষয় নয়, মহিলা বা পুরুষ নির্বিশেষে তা সত্যি।