উন্নয়নের ভাবনা কেন একমাত্রিক হবে?-

0
10

উন্নয়নের ভাবনা কেন এমন একমাত্রিক হবে?–ভঙড়ে পাওয়ার গ্রিড তারের লাইন টানা ও পাওয়ার সাবস্টেশন তৈরির জন্য জমি অধিগ্রহন কে কেন্দ্র করে কৃষকদের মধ্যে আবার আতঙ্ক ছড়িয়েছেইতিমধ্যেই  গুলিতে নিহত হয়েছেন দুজন গ্রামবাসী,গুলিবিদ্ধ কয়েকজন এখনও হাসপাতালে আছেনসরকারের তরফে উন্নয়ন ব্যহত করার অভিযোগ তোলা হয়েছে,এমন অভিযোগ সিঙ্গুর নন্দীগ্রামের আন্দোলনের সময়ও তোলা হয়েছিল,অজকের মুখ্যমন্ত্রী,সেদিনের বিরোধীনেত্রী তখন বলতেন উন্নয়ন দরকার তবে তা কোনভাবেই গরিব কৃষকের জীবন যাপনকে তছনছ করে দিয়ে নয়,আজ ক্ষমতার চেয়ারে বসে সেদিনের কথা বেমালুম ভুলে গেছেন তিনিতাই শুধু উন্নয়ন বিরোধী চক্রান্তের কথাই বলছেন না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়,ভাঙড়ের জমি আন্দোলনের পেছনে একেবারে পূর্বতন বাম সরকারের অনুকরণে মাওবাদী ও বহিরাগতদের ইন্ধনের অভিযোগও তুলেছেনযাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ একসময় তাঁরাই তাঁর সহায়ক শক্তি ছিলআমাদের প্রশ্ন উন্নয়ন এমন একমাত্রিক হবে কেন,উন্নয়ন মানে তো সমষ্টি স্বার্থ রক্ষা করা,জমি অধিগ্রহনের ফলে যে কৃষকের জীবন যাপন তছনছ হয়ে যাবে তাদের উন্নয়নের ভাবনা কে ভাববে,এঁদের যথার্থ পুনর্বাসনের ভাবনাকে এড়িয়ে সমষ্টি স্বার্থের উন্নয়ন ত্বরাণ্বিত হবে কোন অংকে ভর করে?এদেশে বার বার কেন যে কোন উন্নয়েন মূল্য চুকোতে হয় শুধুমাত্র গরিব রিক্ত মানুষ জনকে,কেন এঁদের উন্নয়নের শরিক করার কথা এদেশের কোন সরকার কখোন ভাবে না?মুখ্যমন্ত্রী একদিকে বলছেন মানুষ না চাইলে পাওয়ার গ্রিড ওখানে হবে না,অন্যদিকে এলাকায় পুলিশ ঢুকিয়ে গণআন্দোলনের নেতা নেত্রীদের গ্রেপ্তার করছেন,গণআন্দোলন করা কী অপরাধ,তাহলে তো সিঙ্গুর নন্দীগ্রামের আন্দোলনের জন্য মমতাকেও গ্রেপ্তার করতে পারতো বাম সরকার,তা না করে বামেরা ভুল করেছে সেটাই প্রমাণ করতে চাইছেন কী বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী?আজ যদি ভাঙড়ের আন্দোলনকারীরা বহিরাগত হন তাহলে মমতাও সেদিন সিঙ্গুর নন্দীগ্রামে বহিরাগতই ছিলেনউন্নয়ন মানে শুধু চওড়া রাস্তা,আলো ভরা পরিবেশ,উতসব,মেলা আর সরকারের নানামুখি প্রতিশ্রুতিই নয়,উন্নয়ন মানে মুক্ত স্বাধীন চিন্তা প্রকাশের উপযুক্ত পরিবেশ,যেখানে একজন সহনাগরিকের জীবন যন্ত্রনায় হাত বাড়িয়ে সাহায্য করলে পুলিশ তেড়ে আসবে না,বহিরাগত তখমা এটে দিয়ে একঘরে করার চেষ্টা হবে নাউন্নয়নের একমুখি ভাবনা কে বৃহত পুঁজি চালিত মিডিয়ার সাহায্য নিয়ে যতোই গেলানোর চেষ্টা করা হোক মানুষ তাদের জীবনের অভজ্ঞতা দিয়েই সত্যটা চিনে নেয়,সিঙ্গুরে চিনেছিল,নন্দীগ্রামে চিনেছিল,ভাঙড়ও  চিনে নেবেআপনি দেখবেন মুখ্যমন্ত্রী, মুখোশ খসে পড়া শুধুই সময়য়ের অপেক্ষা