হায় ধর্ম নিরপেক্ষতা

0
4

রামনবমী বিজেপির কর্মসূচি হয় কীভাবে,সে প্রশ্ন তুলেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রামনবমী নিয়ে বিজেপি কেন মাতামাতি করছে তা নিয়েও উষ্মা প্রকাশ করেছেন মমতা।আসলে কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী জানেন কেন বিজেপির এই রামনবমী হুজুক,সাধারণ মানুষের ধর্মীয় ভাবাবেগে সুড়সুড়ি দিয়ে ভোটের ফায়দা তুলতেই যে এই তোরজোর তা না বোঝার মতো বোকা রাজনীতিক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন,তবু তার বিরুদ্ধে উষ্মা প্রকাশ করছেন তিনি কারণ ভয়,ভয় পাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী,তিনি জানেন এদেশে ধর্মীয় ভাবাবেগকে কাজে লাগিয়ে রাজনীতির ফায়দা তোলা যায়,তিনি নিজেও সেই ফায়দা তুলেছেন,তাই এখন বিজেপিকে এ রাজ্যে সেই ফায়দা তুলতে যেতে দেখে ভয় হচ্ছে তাঁর।ধর্মকে রাষ্ট্র পরিচালনার ক্ষেত্রে কোনভাবেই ব্যবহার করা যাবে না এ দেশের কোন রাজনৈতিক দলই সংবিধানের এই উপদেশকে মান্যতা দেওয়ার প্রয়োজনিয়তা বোধ করেনি,সবাই ধর্মকে ব্যবহার করেছে, সেই ফরমূল্যায় বিজেপি এখন লাগামহীনভাবে ধর্মীয় মেরুকরণ ঘটিয়ে তাদের ক্ষমতা বৃদ্ধিতে মরিয়া। এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী  ধর্ম আর রাজনীতি মেলাতে চাইলে জেলে ভরার হুশিয়ারি দিতে পারেন না,বরং তিনি যে আর বড় ধার্মীক তা প্রমাণ করতে সরকারী অনুষ্ঠানে হিন্দু মন্ত্র উচ্চারণ করতে শুরু করেন। তিনি প্রতিদিন কত দেবতার পুজো করেন তার ফিরিস্তি দিতে থাকেন প্রকাশ্য জনসভায়। বোঝা যাচ্ছে পুরনো নোটের মতোই ধর্ম নিরপেক্ষতা শব্দটাও এদেশে বাতিল হওয়ার মুখে।