বরকতিদের মতো মানুষরাই মুসলিমদের বিপদ

0
6

লালবাতির গাড়ি গোটো দেশ থেকেই তুলে দেওয়ার একটা প্রয়াস কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে নেওয়া হচ্ছে।এই প্রচেষ্টা সাধারণ মানুষের সমর্থন পাবে বলেই মনে করা যায়।এমনিতেই এই লালবাতির গাড়ির অপব্যবহারের ইতিহাসও অনেক লম্বা।এই জন্যই বোধহয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যিনি বিজেপি সরকারের সব সিদ্ধান্তের প্রকাশ্য বিরোধিতা করেন,তিনিও এ বিষয়ে রা কাড়ছেন না।তবে বিরোধিতায় নামলেন টিপু সুলতান মসজিদের ইমাম মৌলানা বরকতি,তিনি সাব জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা তাঁকে না বললে তিনি লালবাতির গাড়ি ছাড়বেন না।বৃটিশ আইন মেনে তিনি নাকি লালবাতির গাড়ি চড়েই যাবেন।একজন ইমামের এরকম গাড়ির প্রতি কেন এত লোভ,কেন বাড়তি সুযোগ ছাড়তে এতো অনিহা?আসলে বরকতিদের মতো মানুষজনেরাই মুসলিম সমাজের বিপদ।এঁদের জন্যই সমগ্র মুসলিম সমাজকে তোষণের অভিযোগ শুনতে হয়।অথচ বাস্তবটা ঠিক উল্টো সাধারণ মুসলিম চাকরি শিক্ষায় সংখ্যালঘুদের জন্য নির্ধারিত সুযোগটুকুও পায় না।তথ্য দিয়ে এই সত্য প্রমাণ করা যায়।দারিদ্র অশিক্ষা ধর্মান্ধতা মুসলিম সমাজকে পেছিয়ে দিচ্ছে,একবারের জন্যও বরকতির মতো ইমামরা সমগ্র মুসলিম সমাজের বঞ্চনা নিয়ে প্রতিবাদ মুখর হন না।শুধু নিজেদের সুযোগ সুবিধা বাগিয়ে নেওয়ার ধান্দা করতে থাকেন।ইমাম ভাতা,লালবাতির গাড়ি,আর মুখ্যমন্ত্রীর সভা সমাবেশে বসে থেকে রাজনৈতিক ক্ষমতা ভোগ ছাড়া কিছু করেন না এঁরা।তাই মুসলিম সমাজ বরকতিদের থেকে দুরত্ব তৈরি করলেই তাঁদের মঙ্গল।