২১ জুলাইয়ের শহিদ স্মরণ নিয়েও তৃণমূল নেতৃত্বের বিরুদ্ধে দ্বিচারিতার অভিযোগ কুণাল ঘোষের

0
9

শাসক দলের পক্ষ থেকে ২১জুলাইয়ের শহিদ স্মরণ নিয়ে যখন রাজ্য জড়ে ব্যাপক প্রচার অভিযান চলছে,তখন ২১জুলাইয়ের গণহত্যাকারীদের শাস্তির দাবি তুলে শাসক তৃণমূলকে অস্বস্তিতে ফেললেন তৃণমূলেরই সাংসদ কুণাল ঘোষ।দল কুণালকে সাসপেন্ড  করলেও তাঁর দাবি তিনি দলকে নিয়মিত চাঁদা দেন,তিনি এখনও দলের সঙ্গেই আছেন।নিজের ফেসবুক পাতায় কুণাল দাবি তুলেছেন শহিদ দের রক্তের মূল্যে ক্ষমতার চেয়ারে বসা মমতার বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার কেন সেদিনের গণহত্যাকারীদের শাস্তি দেওয়ার ব্যবস্থা করছে না।কেন এই হত্যাকান্ড নিয়ে গঠিত কমিশনের রিপোর্ট প্রকাশ্যে আনছে না।কুণালের অভিযোগ সেদিনের সেই হত্যার জন্য যারা দায়ী তাদের অনেকেই এখন শাসক দলের সঙ্গে আছেন,সেই জন্যই শাস্তি হচ্ছে না,সেদিনের স্বরাষ্ট্রসচিব মণিষ গুপ্তের নির্দেশেই গুলি চালান হয়েছিল,সেই মণিষ গুপ্ত তৃণমূলের প্রথমবারের সরকারে মন্ত্রী হয়েছিলেন,দ্বিতীয়বার বিধানসভা নির্বাচনে পরাজিত হয়ে এখন আবার রাজ্য সভার সদস্য হবার জন্য অপেক্ষারত,মমতার একান্ত পছন্দের লোক।কুণালের মতে এই ব্যক্তিটিই ২১ জুলাইয়ের গণহত্যার প্রধান নায়ক।এদের আড়াল করতেই ২১ জুলাই সংক্রান্ত কমিশনের রিপোর্ট প্রকাশ্যে আনা হচ্ছে না বলে কুণাল ঘোষের অভিযোগ।কুণাল ঘোষ নিজেও ২১ জুলাইয়ের প্রত্যক্ষদর্শী হওয়ায় কমিশনে সাক্ষ্য দিয়েছেন।আর সেই সূত্রেই তাঁর দাবি কমিশনের রিপোর্ট প্রকাশ্যে এলে অনকেরই মুখোশ খশে যেত,তাই তা আটকে রাখা হয়েছে।সেদিনের হত্যাকে যারা ইন্ধন দিয়েছিল তাদের মঞ্চে বসিয়ে শহিদদের জন্য চোখের জল ফেলাকে নির্লজ্জ দ্বিচারিতা বলে কটাক্ষ করেছেন কুণাল ঘোষ তার ফেস বুক পাতায়।একই সঙ্গে ২১ জুলাই সভায় যোগ দিতে আসা সাধারণ তৃণমূল কর্মীদের কাছে কুণাল আবেদন রেখেছেন তারা যেন সেদিনের গণহত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে সরব হন।