চরম আর্থিক অনটনে জীবনকে বিদায় জানালেন সাংবাদিক প্রদীপ পাল

0
62

প্রয়াত হলেন সাংবাদিক প্রদীপ পাল।বেশ কিছুদিন ধরেই তিনি ক্যানসারে ভুগছিলেন,মঙ্গলবার দুপুরে মারা যান তিনি।জীবনের শেষ কয়েকটি বছর চরম আর্থিক দুরাবস্থার মধ্যে কাটাতে হয়েছে প্রবীন এই সাংবাদিককে।শেষ দিকে চরম আর্থিক অনটনে নিজের রোগের চিকিত্সাটুকুও করাতে পারেননি।বিনা পরিচর্যাতেই একরকম চলে গেলেন প্রদীপ পাল।বয়স হয়েছিল ৬২।একসময় কালান্তর পত্রিকায় সাংবাদিকতার পাশাপাশি বিভিন্ন পত্রিকায় নিয়মিত কবিতা লিখেছেন।কালান্তরের পর দীর্ঘদিন কাজ করেছেন একটি হিন্দি দৈনিকে।মহাকরণে নিয়মিত যেতেন এক সময় প্রশাসনিক খবরাখবর সংগ্রহ করতে।২০১১-২০১২সাল নাগাদ যোগ দিয়েছিলেন চিট ফান্ড দ্বারা চালিত একটি বাংলা দৈনিকে।বেআইনি চিট ফান্ড সংস্থা বন্ধ হয়ে যাওয়ায়,কাগজও বন্ধ হয়ে যায়।সেই সময় এ রাজ্যের হাজার হাজার সাংবাদিক কাজ হারায়,কাজ হারান প্রদীপ পালও।সংসার নিয়ে চরম দুরাবস্থার মধ্যে পরেন তিনি,কাজের জন্য সে সময় শাসক দলের আনুগত্য পাওয়া অনেক অযোগ্য সাংবাদিকের কাছেও ছুটে গেছিলেন প্রদীপ পাল,তবে নিরাশ হয়েছেন বার বার।শোষ পর্যন্ত অনেক চেষ্টায় সালাম ইন্ডিয়া নামে একটি হিন্দি দৈনিকে নামমাত্র বেতনে কয়েক বছর কাজ করছিলেন।এরই মধ্যে দুরারোগ্য ক্যানসারে আক্রান্ত হন।প্রদীপ পালের হয়ে তার বেশ কিছু সাংবাদিক বন্ধু সরকারের কাছে আর্থিক সাহায্যের আবেদন করেছিলেন,আবেদন করা হয়েছিল কলকাতা প্রেস ক্লাবের কাছেও,যাতে তার চিকিত্সার  খরচ কিছু পাওয়া যায়,তবে তাতে তেমন সুরাহা মেলেনি বলেই খবর।শেষে একরকম অবহেলা আর অবজ্ঞা নিয়েই চলে গেলেন প্রদীপ পাল।এ রাজ্যে এখন প্রদীপ পালের চেয়ে অনেক অযোগ্য,অদক্ষ্য সাংবাদিক শুধুমাত্র মুখ্যমন্ত্রীর কাছের লোক হওয়াতে টিভি চ্যানেল বা কাগজের মাথা হয়ে লাখ লাখ টাকা কামিয়ে যাচ্ছেন,আর প্রদীপ পালরা হারিয়ে যাচ্ছেন জীবন থেকে নীরবে নিভৃতে।এই চরম লজ্জাকে মেনে নিয়ে এ রাজ্যের সাংবাদিকরা কবে মাথা হেঁট করবে কে জানে!