স্বজনপোষণের দায়ে আদালতে জরিমানা মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের

0
9

কলেজে কর্মী নিয়োগের ক্ষেত্রে স্বজনপোষণের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা দিতে নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট।শুধু তাই নয় কোর্ট নির্দেশ দিয়েছে স্বজনপোষণের সূত্রে যাকে চাকরি দেওয়া হয়েছিল তাকে অবিলম্বে বরখাস্ত করে যোগ্য ব্যক্তিকে চাকরিতে বহাল করতে হবে,ঐ ব্যক্তির চাকরির মেয়াদ যখন থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল,সেই সময় থেকে তার বকেয়া মিটিয়ে দেওয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন কলকাতা হাইকোর্টের মাননীয় বিচারপতি সুব্রত তালুকদার। গণশক্তির রিপোর্ট অনুযায়ী,ঘটনার সূত্রপাত ২০০৪ সালে,নিউ আলিপুর কলেজের ক্লার্কের চাকরির জন্য বিজ্ঞপ্তি জারি হয়।পরীক্ষা দেন বেশ কিছু প্রার্থী।সেই পরীক্ষায় প্রথম হন লিপি বন্দ্যোপাধ্যায় নামে এক মহিলা।তিনি প্রথম হওয়ার তালিকাও দেখে যান।কিন্তু তাকে চাকরি না দিয়ে চাকরি দেওয়া হয় অন্য একজনকে। তখন অভিযোগ ওঠে অরূপ বিশ্বাস ঐ কলেজের পরিচালন কমিটির সভাপতি হিসেবে নিজের প্রভাব খাটিয়ে পছন্দের একজনকে চাকরি পাইয়ে দিয়েছেন বলে।এই অভিযোগ নিয়ে লিপি বন্দ্যোপাধ্যায় আদালতের দ্বারস্থ হন।দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ের পর গত মঙ্গলবার যাবতীয় নথি পর্যালোচনা করে কোর্ট জানিয়ে দেয় লিপি বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগ সঠিক।তাঁকে চাকরি ফিরিয়ে দিতে বলে কোর্ট কলেজের সেই সময়কার পরিচালন কমিটির সভাপতি তথা এখন প্রভাবশালী মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসকে তীব্র নিন্দা করে ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা দেওয়ার নির্দেশ দেয়।যদিও রাজ্যের প্রভাবশালী মন্ত্রীর এমন অনৈতিক কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকা ও আদালতে নিন্দিত হওয়ার চাঞ্চল্যকর খবর গণশক্তি ছাড়া কোন কাগজেই প্রকাশিত হয় নি।