পেট্রোপণ্যের দাম বাড়ার সঙ্গে যুক্তির কোন সম্পর্ক আছে কি?

এদেশে জনগণকে জবাবদিহি করার দায় সরকারের নেই। সরকারি সংস্থারও নেই। তাই বিশ্ববাজারে তেলের দাম তলানিতে এসে ঠেকলেও এদেশে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে পেট্রোপণ্যের দাম। এমনকি ভরতুকি যুক্ত রান্নার গ্যাসের দাম। সরকার বলছে ধাপে ধাপে ভরতুকি তুলে দেবে। তাহলে কেন আধারকে lpg এর সঙ্গে জোড়া হল? এর জবাব দেওয়ার দায় সরকারের নেই। রান্নার গ্যাসে নাকি অনেকটা ভরতুকি দিতে হচ্ছে তেল সংস্থাগুলো। কিন্তু কীভাবে? কে নির্ণয় করলে সিলিন্ডারের দাম? সরকার পেট্রোপণ্যের উপর কতটা করের বোঝা চাপিয়েছে? এর জবাব দেওয়ার দায় সরকার বা তেল কোম্পানিগুলোর নেই। করপোরেট সংস্থাগুলোকে ভরতুকি দেওয়ার বিষয় সরকারের কোন অসুবিধা হয় না। কিন্তু নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তকে ভরতুকি দেওয়ার ফলেই নাকি উন্নয়নের জন্য টাকা থাকছে না সরকারের। বিশ্ববাজারে যে দামের দোহাই দিয়ে দেশের বাজারে জ্বালানী তেলের দাম বাড়ান হয় সেখানে প্রতি ব্যারেল তেলের দাম এখন  ৫০ ডলারের আশেপাশে। অথচ বছর দুয়ের আগেই তা ছিল ১১৫ ডলার প্রতি ব্যারেল। সবাই জানেন তেলের দাম বাড়া মানেই নিত্য প্রয়োজনীয় সব জিনিসের দাম বাড়া।একদিকে তেল কোম্পানিগুলি মর্জিমাফিক দাম বাড়াচ্ছে অন্যদিকে দফায় দফায় কর বাড়িয়ে আয়ের সহজ রাস্তা করে ফেলেছে কেন্দ্র। অথচ বিশ্ববাজারে তেলের দাম কম হওয়ায় এর সুবিধা পাওয়ার কথা ছিল জনসাধরণের। কিন্তু এদেশে হচ্ছে এর উল্টো।