গাড়িকে জায়গা ছাড়তে দেরি করায় নিজেই মেরে হাত ভেঙ্গে দিলেন বাস চালকেরঃকাঠগড়ায় মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়

মন্ত্রীর গাড়ি যাওয়ার জন্য রাস্তা না ছাড়ায় এক বাস চালককে নিজেই লাঠি পেটা করে হাত ভেঙ্গে দিলেন মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। শুধু তাই নয় বাস চালককে মন্ত্রীর বেদম প্রহারের প্রতিবাদ করায় এক বাস যাত্রীও মন্ত্রীর তীব্র আক্রোশে আহত হন বলে অভিযোগ।ঘটনাটি শুক্রবার রেড রোড সংলগ্ন ফোর্ট উইলিয়ামের ৫ নম্বর গেটের কাছে এই ঘটনার রিপোর্ট অবশ্য গণশক্তি ছাড়া অন্যত্র নজরে আসেনি! গণশক্তিতে প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী শুক্রবার রেড রোডের কাছে হুটার বাজাতে বাজাতে মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জীর গাড়ি আসার সময় একটি বেসরকারি বাসের পেছনে আটকে পড়ে,সামনে গাড়ি থাকায় বাসের চালক মন্ত্রীর গাড়িকে জায়গা করে দিতে একটু সময় নেন,আর তাতেই নাকি অগ্নীশর্মা মূর্তি ধারন করেন সুব্রত মুখার্জী,নিজেই গাড়ি থেকে নেমে পড়ে লাঠি দিয়ে পেটাতে থাকেন বাস চালককে।বাস চালকের হাত ভেঙ্গে যায় বলে অভিযোগ।বাস চালককে মন্ত্রীর এভাবে মারা দেখে প্রতিবাদে এগিয়ে আসেন সাধারণ এক যাত্রী গৌতম দাস,অভিযোগ এরপর মন্ত্রী বাসচালককে ছেড়ে চড়াও হন সেই যাত্রীটির উপর,তাকেও চড় থাপর মারতে থাকেন মন্ত্রী।মন্ত্রীর এরকম অন্যায় অত্যাচার দেখে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠতে থাকেন বাসের অন্যান্য যাত্রীরাও,অবস্থা বেগতিক হতে পারে বুঝতে পেরে সেই সময় ডিউটিতে থাকা ট্রাফিক সার্জেন্টরা তাড়াতাড়ি মন্ত্রীকে ধরে গাড়িতে বসিয়ে দেন।গণশক্তির রিপোর্ট অনুসারে আহত বাসচালক ও যাত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।তথা্কথিত এই গণতন্ত্রে মন্ত্রীরাই যে আসল রাজা রাজ্যের এই বর্ষীয়ান মন্ত্রী তা আবার প্রমান করে দিলেন। আর মজার এ রাজ্যে এখন স্বাধীন মত প্রকাশের এমন অবাধ ও নিরপেক্ষ পরিবেশ তৈরি হয়েছে যে একমাত্র গণশক্তি ছাড়া এরকম চাঞ্চল্যকর খবরটিও কোথাও প্রকাশ হয় নি!