নতুন করে তপ্ত হচ্ছে ভাঙড়

বেশ কিছুদিন শান্ত থাকার পর ভাঙড়ে আবার উত্তেজনা ছড়াতে শুরু করলো,বৃহস্পতিবার জমি আন্দোলনের নেতা শেখ সামসুল হকের অফিসে আচমকাই বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় এলাকা জুড়ে উত্তেজনা ছড়ায়।জমি বাঁচাও এবং পাওয়ার গ্রিড বিরোধী আন্দোলনের নেতারা অভিযোগ করেছেন শাসক দল আবার এলাকায় দখল নিতে চাইছে,সেই কারণেই নতুন করে এলাকায় সন্ত্রাস ছড়ানোর লক্ষ্যে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটিয়েছে।জমি আন্দোলনের নেতা শেখ সামসুল হক ওরফে কালুকে হত্যা করার জন্যই আক্রমণ করা হয়েছে বলে আন্দোলনকারীদের দাবি।এলাকায় এলাকায় জমি আন্দোলনের কর্মীদের শাসানো হচ্ছে বলেও অভিযোগ করা হয়েছে জমি আন্দলনকারীদের তরফে।প্রসঙ্গত,শেখ সামসুল হক,ভাঙড়ের পাওয়ার গ্রিড বিরোধী আন্দোলনের প্রধান মুখ বলেই পরিচিত,তাঁর নেতৃত্বেই আন্দোলন শুরু হয়,তার পরেই তাঁকে ও তাঁর ভাইকে সিআইডি গ্রেপ্তার করে,সেই ঘটনার জেরে গ্রামবাসীরা জোরদার লড়াই শুরু করে দেয়,রাস্তা কেটে,প্রশাসনকে আটকাতে চায়,পথ অবরোধ শুরু হয়,জনতা পুলিশ সংঘর্ষে মারা যায় দুজন।তারপর দীর্ঘ আইনি লড়াই করে শেখ সামসুলকে জামিনে মুক্ত করেন আন্দোলনকারী ও তাদের সমর্থকরা।সেই সামসুলকেই খুনের চেষ্টা করছে শাসক দলের মদত পুষ্ট দুষ্কৃতীরা  এমনটাই অভিযোগ জমি আন্দোলনকারীদের।তবে সব অভিযোগ অস্বীকার করে শাসক দল তৃণমূলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে জমি বাঁচাবার আন্দোলনের নামে ভাঙড়ে সামসুল হকেরা জঙ্গী কার্যকলাপকে মদত দিয়ে চলেছে তার জন্যই প্রচুর অবৈধ অস্ত্র মজুত করা হয়েছিল তা থেকেই বিস্ফোরণ ঘটেছে।কালী পুজো কেটে গেলে এলাকায় জঙ্গী কার্ষকলাপ বন্ধে শাসক দলের পক্ষ থেকে জোরদার আন্দোলনের হুমকি দেওয়া হয়েছে,উল্টোদিকে জমি আন্দোলনের নেতাদের দাবি কালী পুজো মিটলেই শাসক প্রশাসনের মিলিত আক্রমণ যে নেমে আসতে পারে তা আঁচ করে তারাও পাল্টা প্রতিরোধের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে।সব মিলিয়ে ভাঙড় আবার তপ্ত হয়ে ওঠার অপেক্ষায়।

,