অমিত শাহকে ক্লিনচিট দিতে এক বিচারপতিকে ১০০ কোটি ঘুষের টোপ? দাবি মৃত বিচারপতির পরিবারের

ভুয়ো সংঘর্ষে সোরাবুদ্দিন হত্যা মামলায় বিজেপি নেতা অমিত শাহের অনুকূল রায় দেওয়ার জন্য বিচারপতি বিএইচ লোয়াকে ১০০ কোটি টাকা ঘুষের টোপ দিয়েছিলেন বোম্বে হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি  মহিত শাহ। দ্য ক্যারাভান পত্রিকায় প্রকাশিত মৃত বিচরপতির লোয়ার দিদি এই বিস্ফোরক দাবি করেছেন। ২০০৫ সালে সোরাবুদ্দিনকে ভুয়ো সংঘর্ষে হত্যা করে গুজরাট পুলিস। পুলিসের দাবি ছিল নিহত লস্কর জঙ্গি রাজ্যে  নাশকতার চালানোর জন্য এসেছিল। পরে অবশ্য প্রমাণিত হয় পুরোটাই মিথ্যে। সংঘর্ষের ঘটনায় নাম জড়ায় গুজরাটের তত্কালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের। ২০১০ সালে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ তদন্তের ভার যায়  সিবিআই  এর হাতে। ২০১৩ সালে অমিত শাহকে গ্রেফতারের ভাবনা চিন্তা শুরু করে সিবিআই। কেন্দ্রে ক্ষমতার পালাবদল হতেই সব পাল্টে যায়। মামালা যে বিচারপতির আদালতে চলছিল সেই বিএইচ লোয়া ২০১৪ সালের ৩০ নভেম্বর- ১ডিসেম্বরের রাতে নাগপুরে   হঠাত্ই সরকারি গেস্ট হাউসে অস্বাভাবিক ভাবে মারা যান। তার জায়গায় যে বিচারপতি আসেন তিনি অমিত শাহকে ক্লিনচিট দেন। রায়ের বিরুদ্ধে আপিলও করে না সিবিআই। পুরো বিষয়টা যে যথেষ্ট গণ্ডোগোলের তা বুঝতে অসুবিধা হয়নি কারো। এবার ক্যারাভান পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাত্কারের লোয়ার পরিবারের তরফে যে ১০০ কোটির ঘুষের অভিযোগ আনা হয়েছে তা একেবারে উড়িয়ে দেওয়ার নয় বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষকদের একাংশ। কারণ বিচারপতি মোহিত শাহের বিরুদ্ধে অভিযোগ নতুন কিছু নয়। তার শুরুটা আবার গুজরাট থেকেই!