চিটফান্ড কেলেঙ্কারির এতদিন পর রোজভ্যালির সোনার দোকান আদ্রিজাতে ইডির হানা

সাধারণভাবে আমাদের অভ্যাস নয় এটা বলার যে আমরাই প্রথম বলেছিলাম। কিন্তু কখনও কখনও না বললেই হয়তো অন্যায় হয়। এক বছরেরও আগে থেকে আমরা বলে আসছি রোজভ্যাল সোনার দোকান আদ্রিজা কী করে এখনও চলছে। বুধবার আদ্রিজার বিভিন্না শাখায় তল্লাশি চালাল ইডি। রোজভ্যালির মালিক জেলে থাকলেও কী করে তার সোনার সোনার দোকান এতদিন ধরে চললো।টেলিভিন চ্যানেল বা সংবাদপত্রই বা চলছে কীকরে।নিউজ চ্যানেল থেকে খবরের কাগজ, বিনোদন চ্যানেল, সবই এতদিন চলছিল অথচ ইডির চোখে তা পড়েনি? শুধু তাই নয়  রোজভ্যালির ৮টি হোটেল, জমি সহ মোট ১২৫০ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করেছে ইডি। অথচ  বাজেয়াপ্ত সম্পত্তির তালিকায় নেই আদ্রিজা সোনার গয়নার নাম। ভিআপি রোড, বেহালা  রোজভ্যালির   আদ্রিজা গয়নার দোকান এতদিনেও বাজেয়াপ্ত হল না কেন?  সূত্রের খবর আদ্রিজার গয়নার দোকানের আড়ালো কোটি কোটি টাকা পাচার করেছে রোজভ্যালির মালিক গৌতম কুন্ডু। আদ্রিজা সোনার দোকান থেকে গৌতম কুন্ডুর স্ত্রী নাকি মাসে মাসে বেতনও নিতেন। মিডিয়া তিনি জানিয়েছেন তা তিনি ইডিকে জানিয়েও ছিলেন। ফলে শুধু প্রকাশনা সংস্থা নয় রোজভ্যালির অনেককিছুই এখন চলছে। হাতবদল হচ্ছে বলে সূত্রের খবর। প্রায় ১৭ হাজার কোটি টাকার রোজভ্যালি কেলেঙ্কারি সারদার থেকে অনেক বড় হওয়া সত্ত্বেও তেমন হইচই  নেই। সিবিআইও যেন কোন অজ্ঞাত কারনে ঝিমিয়ে পড়েছে।