সুপ্রিমকোর্টে লাইসেন্স বাতিল। CBI আদালতে 2G কেলেঙ্কারিতে বেকসুর খালাস এরাজা ও কানিমোঝি

0
23

2G কেলেঙ্কারিতে প্রাক্তন টেলিকম মন্ত্রী এ রাজা, কানিমোঝিকে বেকসুর খালাস করল CBI এর বিশেষ আদালত। অভিযুক্তদের আইনজীবী জানিয়েছেন বিচারক বলেছেন অভিযোগকারী সংস্থা অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগই প্রমাণ করতে শোচনীয়ভাবে ব্যর্থ হয়েছে।এর ফলে প্রাক্তন টেলিম মন্ত্রী এরাজা ও DMK এর রাজ্যসভার সদস্য কানিমোঝি সহ অন্য অভিযুক্তদের বেকসুর খালাস দিল বিশেষ আদালত। ২০১১ সালে CBI এর পেশ করা চার্জশিটে অভিযোগ করা হয়েছিল অন্যায়ভাবে সুবিধা পাইয়ে দিতে স্পেকট্রাম বন্টনের জন্য আবেদন জমা দেওয়ার নির্ধারিত সময়, আগে এলে আগে দেওয়ার নীতি সহ একাধিক ক্ষেত্রে অনিয়ম হয়েছিল।CAG এর রিপোর্ট অনুযায়ী এর জন্য সরকারি রাজস্বের আনুমানিক ক্ষতির  অঙ্ক ১ লক্ষ ৭৬ হাজার  ৬৪৫ কোটি টাকা তবে cbi এর দাবি ক্ষতি হয়েছে ৩০ হাজার কোটি টাকার সরকারি রাজস্বের। রাজার বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি কয়েকটি সংস্থাকে সুবিধা পাইয়ে দিতে স্পেকট্রাম বন্টনের  আবেদনের চূড়ান সময়সীমা ১ অক্টোবর ২০০৭  থেকে এগিয়ে এনে  ২৫ সেপ্টেম্বর ২০০৭ করেন । এর জন্য তিনি নাকি ৩০০০ কোটি টাকা ঘুষ নিয়েছিলেন বলে অভিযোগ।কানিমোঝির বিরুদ্ধে অভিযোগ এই ঘুষের ২০০ কোটি টাকা তাদের টিভি চ্যানেলের মাধ্যমে পাচার করতে সাহায্য করেছিলেন তিনি।

ফিরে দেখাঃ

২০০৮ সালে ১২২টি 2G স্পেকট্রামের লাইসেন্স দেওয়া হয় ২০০১সালের নির্ধারিত মূল্যে। এর জেরেই নাকি ১ লক্ষ ৭৬ হাজার কোটি টাকার সরকারি রাজস্বের ক্ষতি হয়। এর পর ২০১২ সালে সুপ্রিম কোর্ট এক রায় এই সব লাইসেন্স বাতিল করার নির্দেশ দেয়।এর পরই এরাজাকে গ্রেফতার করে সিবিআই। কিছুদিন জেলে থেকে জামিন পান তিনি। গ্রেফতার হন কানিমোঝি সহ অন্য অভিযুক্তরাও।