আনন্দবাজারের মিথ্যে বিভ্রান্তিকর খবরের প্রতিবাদ করলেন ভাঙড়ের আন্দোলনকারীরা

মঙ্গলবার আনন্দবাজার সহ কোলকাতার বেশ কয়েকটি খবরের কাগজে প্রকাশিত হয় যে ভাঙড়ে পাওয়ার গ্রিড বিরোধী আন্দোলনের নেতা অলিক চক্রবর্তী গুরুতর অসুস্থ।তাঁর রক্ত বমি হচ্ছে,ডাক্তাররা তাঁকে অবিলম্বে অস্ত্রোপচারের পরামর্শ দিয়েছেন।পুলিশ সূত্রে এই খবর পাওয়া গেছে বলে  বলা হয়েছিলএই খবর সম্পুর্ণ মিথ্যেও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে অভিযোগ করে ভাঙড়ের পাওয়ার গ্রিড বিরোধী আন্দোলনের সহযোগি সংগঠন জমি জীবিকা বাস্তুতন্ত্র ও পরিবেশ রক্ষা কমিটির পক্ষে শর্মীষ্ঠা চৌধুরি এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন।এই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে অভিযোগ করা হয়েছে,ভাঙড়ের আন্দোলনকে ভাঙতে সরকার প্রশাসনের পাশাপাশি সংবাদ মাধ্যমও যে ভূমিকা নিতে শুরু করেছে,এই ধরনের খবর প্রকাশ করা থেকে তা পরিষ্কার হয়ে যায়।এই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে অলিক চক্রবর্তী সম্পূর্ণ সুস্থ ও কর্মসক্ষম আছেন,তাঁর গুরুতর অসুস্থ হওয়ার গুজব ছড়িয়ে,আন্দোলনকে দুর্বল করার চেষ্টা করা হচ্ছে।প্রশ্ন তোলা হয়েছে কেন পুলিশের কাছ থেকে অলিক চক্রবর্তীর শারীরিক অসুস্থতার খবর পাওয়ার পর তা যাচাই করতে অলিকের সঙ্গেই যোগাযোগ করা হল না?এ রাজ্যের সাংবাদিকরা অধিকাংশই এখন পুলিশের মুখপাত্র বলে কটাক্ষ করে এই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে সাংবাদিকতার আদর্শকে মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে।বহিরাগত শব্দটা যে সংবিধান বিরুদ্ধ তাও বলা হয়েছে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে।তবে এরকম মিথ্যে ও ভুল খবর প্রকাশের জন্য কাগজের তরফে ভুল স্বীকার করে দুঃখ প্রকাশ করার রেওয়াজও এ রাজ্য থেকে উঠে গেছে তা বলাই বাহুল্য।প্রসঙ্গত প্রতিবাদী প্রেস বিজ্ঞপ্তি যাঁর নামে ছাপা হয়েছে সেই শর্মীষ্ঠা চৌধুরি অলিক চক্রবর্তীর স্ত্রী,তিনি ভাঙড় আল্দোলনে যুক্ত থাকায় তাকে বেশ কিছুদিন জেলে আটক রাখা হয়,তাঁর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রবিরোধী ইউএপিএ ধারায় অভিযোগ করা হয়,যদিও সরকার সেই অভিযোগ আদালতে প্রমাণ করতে না পারায় আদালত তাঁকে জামিন দেয়।