আবারও স্কুল ছাত্রীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ-উত্তাল কারমেল স্কুল

কিছুদিন আগে জিডি বিড়লা স্কুলে শিশুর যৌন নির্যাতনের ঘটনায় বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছিলেন স্কুলের অভিভাবকরা,সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আবার একই রকম অভিযোগ উঠল দেশ প্রিয় পার্কের কারমেল স্কুলে।শনিবার এই স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ঐ স্কুলের এক নাচের শিক্ষক বেশ কিছুদিন ধরে যৌন নির্যাতন করছে বলে অভিযোগ তুলে অভিভাবকরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন।নির্যাতিত স্কুল পড়ুয়ার অভিভাবক থানায় অভিযোগ দায়ের করায়,অভিযুক্ত স্কুল শিক্ষক সৌমেন জানাকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।এই ঘটনার জেরে উত্তাল হয়ে ওঠে কারমেল স্কুল চত্ত্বর,দফায় দফায় বিক্ষোভ দেখান অভিভাবকরা,তাঁদের বিক্ষোভের ফলে ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত হন টালিগঞ্জ থানার ওসি,তাঁর মাথা ও হাতে চোট লাগে বলে পুলিশ সুত্রে জানানো হয়।অভিভাবকদের অভিযোগ বার বার বলা সত্ত্বেও স্কুল চত্ত্বরে সিসিটিভি বাসায় নি স্কুল কর্তৃপক্ষ,এমনকী মেয়েদের স্কুলে নাচের শিক্ষক কেন পুরুষ তা নিয়েও প্রশ্নের জবাব দেওয়ার প্রয়োজন দেখায়নি কর্তৃপক্ষ।কর্তৃপক্ষের গাফিলতিতেই এরকম ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ তুলে এদিন অভিভাবকদের একাংশ স্কুলের শিক্ষকদের উপর চড়াও হন।পুলিশ শিক্ষকদের নিরাপত্তা দিতে এলে পুলিশের সঙ্গেও অভিভাবকদের ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায়,তার ফলেই থানার ওসি আহত হন।স্কুলের তরফে ঘটনাকে খুবই দুঃর্ভাগ্যজনক বলে অবিহিত করে আইনানুগ ব্যবস্থায় সাহায্য করার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে ।তবে তাতে অভিভাবকদের রোষ যে কমেনি তা বলাই বাহুল্য,তাঁরা পড়ুয়াদের নিরাপত্তার নিশ্চিত আশ্বাস না পাওয়া পর্যন্ত ঘেরাও অভিযান চালিয়ে যাবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।এই ঘটনা একটার পর একটা ঘটে যাওয়াকে সামাজিক মানসিকতার বিকৃতি,ভোগবাদী সংস্কৃতির একতরফা প্রসার ও প্রশাসনিক দূর্বলতাকেই দায়ী করছেন মনোবিদ ও সমাজতাত্ত্বিকদের একাংশ।

,