শাখার ১০ কর্মীকে সাসপেন্ড করে ১১হাজার কোটির কেলেঙ্কারি ধামাচাপা দেওয়া হচ্ছে না তো?

মুম্বইয়ের একটি শাখায় ১১ হাজার কোটি টাকার প্রতারণার জেরে ওই শাখার ডেপুটি ম্যানেজার সহ ১০জন কর্মীকে সাসপেন্ড করল PNB। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে এতবড় আর্থিক প্রতারণা, তাও আবার বিদেশি ব্যাঙ্কের সঙ্গে( লেটার অফ আন্ডারস্ট্যান্ডিং ) তা কী করে ব্যাঙ্কের ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষের নজরদারি এড়িয়ে সম্ভব? নাকি কয়েকজন ‘নীচু তলার’ কর্মীকে বলির পাঁঠা করে এতবড় আর্থিক কেলেঙ্কারিকে ধামাচাপা দিতে চাইছে ব্যাঙ্ক বা সরকার? গত ১ বছরের বেশি সময় ধরে একাধিক এই সব আর্থিক লেনদেন ডলারে হলেও ব্যাঙ্কের বড় কর্তারা কিছুই জানতেন না? নাকি এটা আসলে একটা বড় ব্যাঙ্কিং কেলেঙ্কারির হিমশৈলর চূড়া মাত্র? এই রকম প্রতারণা হয়েছে আরো অনেক ব্যাঙ্কেই?