বাদ যাওয়া কাটা পা কেই রোগীর বালিশ! আঁতকে উঠবেন না।

হাসপাতালে বালিশের অভাব? তাই অস্ত্রপচারের পর রোগীর বাদ যাওয়া কাটা পা কেই রোগীর বালিশ করে শুয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল চিকিত্সকের বিরুদ্ধে। আঁতকে ওঠার  মত এই ঘটনার সাক্ষী হয়ে রইল উত্তরপ্রদেশের ঝাঁসির সুপারস্পেশ্যালিটি  মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। শনিবার গাড়ি দুর্ঘটনায় গুরুতর জখম ঘনশ্যাম নামের  ওই ব্যক্তিকে ঝাঁসি হাসপাতালে আনা হয়। তারপর অস্ত্রপচারের করে বাদ দেওয়া হয় তাঁর পা। আত্মীয়রা এলে দেখেন বাদ যাওয়া কাটা পা বালিশ হিসাবে ব্যবহার করে ঘনশ্যামকে শোয়ানো হয়েছে। এর পর বাজার থেকে বালিশ কিনে আনেন তাঁর আত্মীয়রা। ঘটনা জানাজানি হতেই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকার। তড়িঘড়ি সাসপেন্ড করা হয়েছে জরুরী বিভাগের মেডিক্যাল অফিসার ওRMO সহ ২ নার্সকে। এই ঘটনা একদিকে  চিকিত্সক বা স্বাস্থকর্মীদের সংবেদনহীনতাকে তুলে ধরে ঠিকই, কিন্তু তাই বলে সরকার নিজের দায় এড়াতে পারে না। কারণ পরিকাঠামোর ঘাটতির জন্য চিকিত্সক বা নার্স কী করে দায়ী করা যেতে পারে ? যে দেশে  প্যাটেল বা শিবাজির স্ট্যাচু তৈরির জন্য হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করা হয় সেদেশে স্বাস্থ্যের পিছন সরকারের খরচ করার টাকা থাকে না। আর তাই এরকম অমানবিক ঘটনা দেশের কোন না কোন প্রান্তে প্রায় রোজই ঘটে চলে। তার খুব অল্পই আমরা জানতে পারি। কিছুটা লেখালেখি হয়, ওই পর্যন্ত!

 

,