বন্ধ হোক রামচন্দ্রকে নিয়ে রাজনীতি

এ রাজ্যে এবার রামনবমী পালন করা নিয়ে এক অভূতপূর্ব পরিস্থিতির উদ্ভব হয়েছে।বিজেপির পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয়েছে তারা সশস্ত্র মিছিল করে রাম জয়ন্তি পালন করবে,উল্টোদিকে শাসক তৃণমূলের দাবি তারাও রামের জন্মদিবস পালন করবে ঘটা করে,এবং তারা কোন অস্ত্র প্রদর্শন করবে না।এই পরিস্থিতে রাজ্যজুড়ে রবিবার এক উত্তেজক অবস্থার সৃষ্টি হয়,পুলিশ প্রশাসনের সতর্ক পাহাড়ায়,নিরাপত্তা ব্যবস্থার রক্ত চক্ষুর সামনে পালিত হয় রামনবমী।এরই মধ্যে নানা জায়গায় নানা অপ্রীতিকর ঘটনার খবরও মিলেছে।প্রশ্ন হোল কেন রামচন্দ্রকে সম্মান জানানোর বিয়টা এতটা উত্তেজনাপ্রবোন হয়ে উঠল?এর উত্তর রামচন্দ্রকে শ্রদ্ধা-সম্মান জানানোর যে প্রয়াস তাতে মিশে গেছে রাজনীতির অংক।বিজেপি যেমন রামকে হাতিয়ার করে এ রাজ্যে রাজনৈতিক শক্তি বৃদ্ধিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে,শাসকদলও তোমনি রামের জন্মদিন পালনের অছিলায় একটি নির্দিষ্ট ধর্মীয় সম্প্রদায়ের কাছে এই বা্র্তা পৌঁছে দিতে চাইছে যে তারাও রামভক্ত।রামচন্দ্র এক পৌরাণিক কাহিনির নায়ক,তাঁর সম্পর্কে সাধারণ মানুষের শ্রদ্ধা-ভালবাসা ভাবাবেগগত,সাধারণ মানুষের সেই ভাবাবেগে আঘাত না করে,অশ্রদ্ধা না করেও বলা যায় যে ভাবে রাজনীতির স্বার্থে রামের ভাবাবেগকে কাজে লাগাতে চাইছে রাজনৈতিক দলগুলো তাতে বোধহয় রামচন্দ্রের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে না কোনভাবেই।রামচন্দ্র ন্যায় রাজ্য প্রতিষ্ঠার প্রতীক হিসেবে স্বীকৃত,ক্ষমতা অভিমুখি রাজনীতির স্বার্থে সেই প্রতীককে ব্যবহার করতে চান যারা,তাদের উদ্দেশ্য কতটা সাধু সেটা সাধারণ মানুষের বোঝার সময় এসে গেছে।এ রাজ্যের সরকারও সাড়ম্বরে রামনবমী পালনের অনুষ্ঠানের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছে,অথচ রামনবমী পালনের ভাবাবেগ একটি নির্দিষ্ট ধর্মীয় সম্প্রদায়ের মধ্যেই সীমাবদ্ধ।আর আমাদের সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্র বা সরকার কোন ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানে যুক্ত হবে না,সেটাই ধর্মনিরপেক্ষতার রীতি বলে স্বীকৃত।ক্ষমতা ধরে রাখার তাড়নায় সাংবিধানিক রীতি নীতির কথাও ভুলে যাচ্ছেন আমাদের রাজনৈতিক নেতা নেত্রীরা।রাজনৈতিক ক্ষমতার লোভে য়ারা অন্ধ তারা বোধহয ঐতিহাসিক কিংবা পৌরাণিক য়ে কোন চরিত্রকেই যথার্থ সম্মান জানাবার ক্ষমতা হারিয়ছেন।সেই জন্যই রামচন্দ্রের জন্মদিন পালনের নামে এমন যুদ্ধং দেহি পরিস্থির উদ্ভব হয় চারপাশে।এতে রামের প্রতি শ্রদ্ধা নয়,অশ্রদ্ধাই যে প্রকাশ পায় সেটা বোঝার মতো বোধও আর অবশিষ্ট নেই ক্ষমতার কারবারী রাজনীতিকদের।

,