কমিশনে গিয়ে মনোনয়ন জমা ভাঙড়ের জমি আন্দোলনের প্রার্থীদের

শুক্রবার পঞ্চায়েত ভোটের প্রার্থীপদের মনোনয়ন জমা দিতে গিয়ে শাসক দলের গুন্ডা বাহিনির আক্রমনের মুখে পড়তে হয়েছিল ভাঙড়ে পাওয়ার গ্রিড বিরোধী আন্দোলনকারীদের।শাসক দল আশ্রিত দুষ্কৃতী ও পুলিশ প্রশাসন যোগসাজস করে তাঁদের মনোনয়োন দেওয়া আটকে দেয় বলে অভিযোগ তুলেছিলেন ভাঙড়ের আন্দোলনকারীরা।সেদিনের পর ভাঙড়ের প্রতিবাদীদের এলাকা থেকে বের হতে দিচ্ছে না শাসক দলের গুন্ডা আরাবুল বাহিনির লোকেরা।এই অভিযোগকে ভিত্তি করে ভাঙড় আন্দোলোনকারীদের পক্ষে শর্মিষ্ঠা চৌধুরি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়ে জমি আল্দোলোনকারীদের পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রার্থী দিতে পারার নিশ্চয়তা দাবি করেন।সেই দাবি মেনে সোমবার   হাইকোর্ট রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে সরাসরি জমি আল্দোলনের প্রার্থীদের মনোনয়োন জমা নিতে নির্দেশ দেয়।।হাইকোর্টের বিচারপতির আদেশনামা নিয়ে ভাঙড়ের আল্দোলনকারীরা সরাসরি নির্বাচন কমিশনের অফিসে গিয়ে মনোনয়োন জমা দেন,তবে ভাঙডে় অনেকে আটকে থাকায় সবাই মনোনয়োন দিতে পারেন নি।তবে এটাকে ভাঙড় আন্দোলনকারীদের বড় জয় বলেই মনে করছেন এই আন্দোলনের  অন্যতম নেতা অলিক চক্রবর্তী,তাঁর মতে ভাঙড়ের প্রতিবাদীরা,এবার পঞ্চায়েত ভোটের মাত্রাই পাল্টে দিতে পেরেছে,শুধু তাঁরাই নয় ভাঙড়ে সিপিএমের প্রর্থীরাও জমি কমিটির আর্জির ফলে যে আদেশ হাইকোর্টের মাননীয় বিচারক দিয়েছেন তার পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাচনে লড়ার সুযোগ পাচ্ছেন।