প্রায় ৮ মাস জেলে থাকার পর জামিন পেলেন গোরক্ষপুরের চিকিত্সক কাফিল খান

প্রায় ৮ মাস পর জামিন পেলেন গোরক্ষপুরে জেল বন্দি চিকিত্সক কাফিল খান। এলাহবাদ হাইকোর্ট তাঁর জামিন মঞ্জুর করেছে। আদালত জানিয়েছে চার্জশিট পেশ হয়ে যাওয়ায় কাফিল খানকে জেলে রাখার কোন অর্থ নেই। ১০ অগস্ট ২০১৭, গোরক্ষপুরের সরকারি হাসপাতাল BRD মেডিক্যাল কলেজে অক্সিজেনের অভাবে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে মৃত্যু হয় ৬৩জন শিশুর । যদি সেদিন ওই হাসপাতালের চিকিত্সক কাফিল খান সদর্থক ভূমিকা না নিতেন তাহলে মৃত্যু হতে পারতো আর অনেকের। কাফিল উদ্যোগ নেওয়ায় বেঁচে যায় বহু শিশুর প্রাণ। কাফিল খান নিজের চেষ্টায় , পকেটের পয়সা দিয়ে অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে এসে বহু শিশুর প্রাণ বাঁচিয়ে ছিলেন সেদিন। মিডিয়ায় জানাজানি হতেই সংবাদ শিরোনামে উঠে আসেন কাফিল। আর শিশু মৃত্যুর অস্বস্তি এড়াতে ও ঘটনা ধামাচাপা দিতে রাজ্য সরকার তড়িঘড়ি কয়েকজনের বিরুদ্ধে fir দায়ের করে উত্তর প্রদেশ সরকার। যার মধ্যে ছিলেন কাফিল খানও। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের ধারনা হয়েছিল কাফিলই বিষয়টি মিডিয়াকে জানান। আর এতেই চটে যান যোগী। কাফিলের বিরুদ্ধে আনা দুর্নীতির অভিযোগ ইতিমধ্যেই প্রত্যাহার করে নিলেও  ষড়যন্ত্রের অভিযোগে  চার্জশিট দিয়েছে পুলিস।

,