তামিলনাডুর শিক্ষাজগতে যৌন কেলেঙ্কারির জেরে গ্রেফতার বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক

মেয়েদের দালালিতে গ্রেফতার এবার বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক। তামিলনাডুর কামরাজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মরুগানকে গ্রেফতার করল পুলিস। কিছুদিন আগে মাদুরাই কলেজের এক গণিতের অধ্যাপিকা এই কাজ করেন বলে জানাজানি হয়। তার সঙ্গে মরুগান যুক্ত বলে দাবি পুলিসের।

সম্প্রতি তামিলনাড়ুর এক নামি কলেজের গণিত অধ্যাপক নির্মলা দেবী একটি কলেজের বেশ কয়েকজন ছাত্রীকে ফোন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের আধিকারিকদের শয্যাসঙ্গী হওয়ার টোপ দেওয়ার অডিও টেপ সামনে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। টেপে ওই অধ্যাপককে বলতে শোনা যাচ্ছে ওই ছাত্রীরা যদি তার প্রস্তাবে রাজি থাকে তাহলে তাদের নামে একটি ব্যাঙ্ক অ্যাঙ্কাউন্টে টাকা জমা পড়ে যাবে। মিলতে পারে বৃত্তিও। অধ্যাপিকা তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছে বলে মিডিয়া রিপোর্ট। টেপ সামনে আসতেই কলেজ কর্তৃপক্ষ ওই অধ্যাপিকাকে সাসপেন্ড করেছে। প্রতিবাদে মুখর হয়েছেন অন্য কলেজের ছাত্রছাত্রীরাও। তাদের দাবি শাস্তি দিতে হবে নির্মলাদেবীকে। বিষয়টি নিয়ে রাজনৈতিক মহলেও শুরু হয়েছে আঁকচাআঁকচি। মহিলার দাবি তিনি রাজ্যপাল বনোওয়ারিলাল পুরোহিতের ঘনিষ্ঠ। রাজ্যপাল অবশ্য মহিলাকে চেনেন না বলে জানিয়েছিলেন। রাজ্যপাল তড়িঘড়ি একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। অন্যদিকে DMK দাবি করেছে CBI তদন্তের। কোন অধ্যাপক মেয়েদের আড়কাঠির কাজ করছেন এরকম খবর সাম্প্রতিক অতীতে শোনা যায় নি। কেউ কেউ বলছেন যদি মাদুরাইয়ের কাছে কোন কলেজে এই রকম চেষ্টা হয়ে থাকে তাহলে গ্রাম বা অন্য কলেজেও এই রকম কুকর্মের চেষ্টা বা চক্রের আশঙ্কাকে উড়িয়ে দেওয়া যায় না। এবার বিশ্ববিদ্যলয়ের এক অধ্যাপক গ্রেফতার হওয়ায় বোঝা যাচ্ছে চক্রটা কতটা ভয়ঙ্কর ও প্রভাবশালী। এই গ্রেফতার হিমশৈলের চূড়া মাত্র।