গড়চিরোলিতে সংঘর্ষ নয়, খাবারে বিষ মিশিয়ে হত্যা করা হয়েছে ,অভিযোগ মাওবাদীদের

২২ এপ্রিল ও ২৩ এপ্রিল দুটি ঘটনায় নিহত ৩৯জন সকলেই মাওবাদী নয় তাদের মধ্যে অন্তত ৮জন গ্রামবাসী বলে দাবি করেছে মাওবাদীরা। মিডিয়ায় প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী তেলেঙ্গানা রাজ্য কমিটির তরফে জারি করা প্রেস বিবৃতিতে মাওবাদীরা জানিয়েছে বেশ কয়েকজন গ্রামবাসীকেও হত্যা করেছে পুলিস। একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যাওয়ার জন্য বেরিয়েও এখনও নিখোঁজ ৮ জন গ্রামবাসী। টাইমস অফ ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী গ্রামবাসীদের ধারনা ওই৮জনকে হত্যা করেছে পুলিস। মাওবাদীদের অভিযোগ চরের( প্রাক্তন মাওবাদী এখন পুলিসের হোম গার্ড) মাধ্যমে খাবারে বিষ মিশিয়ে মাওবাদীদের হত্যার পর তাদেরকে গুলি করা হয়। কিছু দেহ নদীতে ফেলে দেওয়া হয়েছে। মাওবাদীরা দাবি করেছে সংঘর্ষের ঘটনা ২২ এপ্রিল হয়নি, বরং তার আগে হয়েছিল।মাওবাদীদের এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে গড়চিরোলির পুলিস সুপার অভিনব দেশমুখ দাবি মাওবাদীরা কখনও একসঙ্গে সবাই খাবার খায় না। যদি খাবারে বিষ বা নেশার কিছু মিশিয়ে দেওয়া হত তাহলে অন্যসঙ্গীরা তা বুঝতে পারতো বলে দাবি পুলিস সুপারের। মাওবাদী ও পুলিসের দাবি , পাল্টা দাবির মধ্যে একটা প্রশ্ন রয়েই গেল সত্যি কী করে এতজন মাওবাদীদের খাবারে বিষ মিশিয়ে দিতে পারলো পুলিস? তাছাড়া চর বা আত্মসমর্পণকারী মাওবাদীদের মাধ্যমে আগেও পুলি এরকম হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করেছিল বলে অভিযোগ ছিল মাওবাদীরা। তার পরও ? গড়চিরোলির ‘ভুয়ো সংঘর্ষের ‘ প্রতিবাদে ৪ মে ভারত বনধের ডাক দিয়েছে মাওবাদীরা।