কাসাউলির অবৈধ হ‍োটেল ভাঙতে গিয়ে জখম কর্মীর ম্যৃত্যু হাসপাতালে

0
11

১ মে হিমাচলপ্রদেশের কাসাউলিতে অবৈধ হোটেল ভাঙতে আসা  সরকারি আধিকারি শৈল বালাকে গুলি করে খুন করে হ‍োটেল মালিক বিজয় সিং। জখম হয়েছিলেন অারেক সরকারি কর্মী,  গুলাব সিং। এতদিন হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। রবিবার তারও ম্যৃত্যু হল। ম্যৃত্যু হল হাসপাতালে। ইতিমধ্যে গুলি করে হত্যার পর পলতাক হোটেল মালিক বিজয় সিংকে গ্রেফতার করেছ পুলিস। মিডিয়া রিপ‍োর্ট অনুযায়ী উত্তরপ্রদেশের মথুরার এক মন্দির থেকে বিজয়কে  গ্রেফতার করে হিমাচল ও দিল্লি পুলিসের এক যৌথ টিম।

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অবৈধ হোটেল ভাঙতে এলো সহকারী নগর পরিকল্পনাকারী শৈল বালার সঙ্গে তর্কাতর্কিতে জড়িয়ে পড়ে হোটেল মালিক বিজয় সিং। তখনই শতাধিক পুলিসের উপস্থিতিতে শৈলকে গুলি করে বিজয় সিং , অাহত হয অরেকজন সরকারি কর্মী গুলাব সিং। পুলিসের সামনে দিযে পালিয়ে যায় বিজয়। সুপ্রিম কোর্ট প্রশ্ন করেছে প্রায় ১৫০ পুলিস মজুত থাকা  সত্ত্বেও কী করে বিজয় এই ঘটনা ঘটিয়ে পালিয়ে গেল? এর পর চাপ বাড়তে থাকে প্রশাসনের। আর বৃহষ্পতিবার গ্রেফতার করা হয় বিজয়কে। হিমাচলের সিমলা সহ সর্বত্রই অবৈধ নির্মাণ খালি চোখেই দেখা যায়। প্রশাসনের মদত ছাড়া দিনের পর দিন এইসহ হোটেল   ব্যবসা করতে পারে না। মাঝখান থেকে অকালে মৃত্যু হল এক সরকারি আধিকারিকের। যেমন আততায়ীর গুলিতে নিহত হতে হয় মঞ্জুনাথ বা সত্যেন্দ্র দুবেদের। আর অনেক ‘নীচু তলার’ নিষ্ঠাবান কর্মীকে জেনে শুনে প্রাণের দায় অন্যায়ের সঙ্গে সমঝোতা করতে হয়। তাই রাজনৈতিক নেতা ও সরকারের আশ্রয় ও প্রশ্রয় যতদিন প্রাকৃতিক সম্পদ লুট হবে ততদিন মাঝে মধ্যেই আমাদের হারাতে হবে কর্তব্যপরায়ন সরকারি কর্মীদের।

ছবি ht এর সৌজন্যে