কবিতার নামে ব্যক্তি আক্রমন করেছেন শঙ্খ ঘোষ অভিযোগ পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের

এ রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় কবিতার খুব সমজদার পাঠক বলে কখোন শোনা যায় নি।তবে শঙ্খ ঘোষের কবিতা নিয়ে নিদান হাকতে তাঁর যে  কোন কুন্ঠা  নেই তা পরিষ্কার করে দিলেন তিনি শুক্রবার প্রেস ক্লাবে মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে।শঙ্খ ঘোষকে যে ভাষায় তাঁদের দলের নেতা অনুব্রত মন্ডল আক্রমণ করেছেন দল তা অনুমোদন করে কি না,সে প্রশ্নের উত্তরে রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী তথা তৃণমূল দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন অনুব্রত অন্যায় করে থাকলে শঙ্খ বাবুও কবিতার নামে ব্যক্তি আক্রমণ করে অন্যায় করেছেন।কবিতায় উন্নয়ন নিয়ে কটাক্ষ করা হলেও ব্যক্তি আক্রমণের বিষয় কেন তিনি আনছেন সে প্রশ্ন শোনার ধৈর্য অবশ্য দেখাতে পারেন নি শিক্ষা মন্ত্রী।নন্দীগ্রামে ১৪ জন মানুষ যখন পুলিশের গুলিতে মারা যান তখনও এই শঙ্খ ঘোষ যে তদানিন্তন বাম সরকারের সমালোচনা করে কবিতা লিখেছিলেন,এবং তীব্র কটাক্ষ করেছিলেন বাম মুখ্যমন্ত্রীকে সে বিষয় পার্থবাবুকে মনে করিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হলে তিনি বলেন,এতে নাকি নন্দীগ্রামের আন্দোলনকে ছোট করা হচ্ছে,সেদিনকার মানুষের লড়াইকে অপমান করা হচ্ছে।কোন কবিতার জন্য নন্দীগ্রামের পরিবর্তন হয় নি,এটাই তাঁর মূল কথা।সাংবাদিক মন্ত্রীকে বোঝাবার চেষ্টা করেন যে তিনি কখোনই বলছেন না যে একটা প্রতিবাদী কবিতার জন্যই রাজ্য জুড়ে পরিবর্তনের ঝড় বয়ে গেছিল,তিনি শুধু মাত্র কবি শঙ্খ ঘোষের প্রতিবাদী সত্তার ধারাবাহিকতা বোঝাতেই বিষয়টার উল্লেখ করছেন কিন্তু ডক্টর পার্থ চট্টপাধ্যায় সে সব কথায় কান না দিয়ে পরিষ্কার জানিয়ে দেন ওসব কবিতা -টবিতা নাকি তিনি ভালই বোঝেন।কবিতার নামে ব্যক্তি আক্রমণের বিরুদ্ধে তাঁর নিদান ঘোষণা করে দেন রাজ্যের মহাপরাক্রমশালী মন্ত্রী মহোদয়।এদিনও রাজ্য জুড়ে উন্নয়নের প্লাবনে ভর করে যে তাঁরা ১০০ শতাংশ পঞ্চায়েত আসন দখল করবেন তা জানাতে ভোলেন নি তৃণমূলের মহাসচিব।

,