ধৃত আরাবুলের পুলিশ হেফাজত,বাড়িতে বোমার গুদামের হদিশ

পঞ্চায়েত ভোটের দুদিন আগে ভাঙড়ের জমি কমিটির মিছিলে আক্রমণ চালানো ও তার জেরে একজনের মৃত্যুর অভিযোগে শেযপর্যন্ত তৃণমূল নেতা আরাবুলকে খোদ মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে গ্রেপ্তার করার পর তাকে আজ কোর্টে তোলা হলে বিচারক আরাবুলকে ২২ তারিখ পর্যন্ত জেল হেপাজতে রাখার নির্দেশ দেন।এদিকে আজ সকাল থেকেই ভাঙড়ে মানুষ বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন যে আরাবুলের বাড়িতে যে বোমা মজুত আছে তা পুলিশতে উদ্ধার করতে হবে এই দাবিতে।শেষ পর্যন্ত মানুষের প্রবল দাবিতে বাধ্য হয়েই পুলিশ আরাবুলের বাড়িতে হানা দেয়,তারপরেই সেখান থেকে বোমার গুদামের হদিশ মেলে।ভাঙড়ের স্থানীয় মানুষজনদের অভিযোগ অনেকদিন ধরে বলা সত্ত্বেও পুলিশ কোন ব্যবস্থা নেয় নি।গতকাল বড় একটা ঘটনা ঘটে যাওয়ার পর বাধ্য হয়ে পুলিশ ব্যবস্থা নিয়েছে।প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে আরাবুলের মত নেতাকে ধরতে শেষ পর্যন্ত কেন মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ পাওয়া জন্য অপেক্ষা করতে হল পুলিশকে,কেন অন্যয় দেখে পুলিশ ব্যবস্থা নিতে পারেন না?অনেকেই মনে করছেন ভোটের আগে কোর্টের চাপ থাকায় ও খুনের ঘটনা ঘটে যাওয়ায় আরাবুলকে গ্রেপ্তার করে ড্যামেজ কন্ট্রোলে নেমেছে প্রশাসন।ভাঙড়ের আন্দোলনকারী মির্জা হোসেনেরও তাই মত।তাঁর মতে সময় মতো ব্যবস্থা নিলে একটা তরতাজা প্রাণ এভাবে ঝরে যেত না।