উচ্চমাধ্যমিকে লক্ষাধিক ফেলের দায় কার?

এবার উচ্চমাধ্যমিকের  ফল প্রকাশের পর থেকে একটাই চর্চা, কলা থেকেও প্রথম হওয়া যায়। বিষয়টা যেন এরকম কলা বিভাগ থেকে প্রথম হওয়া বা না হওয়া একটি  ব‍োর্ডের পরীক্ষার মূল সাফল্য বা ব্যর্থতার বিষয়। যারা কৃতী, তাদের শুভেচ্ছা। কিন্তু এই সাফল্যের পিছনে শিক্ষা ব্যবস্থার কি কোন  অবদান অাছে? দু একজন কৃতীদের নিয়ে লাফালাফি না করে সমাজের পিছিয়ে থাকা অংশ থেকে কতজন ছাত্র বা ছাত্রীকে উচ্চ শিক্ষার অঙ্গনে অানতে পারল বোর্ড সেটা কি বিশে অালোচনা হওয়া উচিত নয়?  কেউ বলছেন না কেন ১ লক্ষের বেশি ছাত্র-ছাত্রী এবার উচ্চমাধ্যমিকে পাশ করতে পারল না। অনেকেই বলবেন প্রতিবারই পারে না। সত্যি। কিন্তু  কেন? মাধ্যমিকের গন্ডি পেরিয়ে অাসর পর তাদের কি এমন পাখা গছালো যে তারা  উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় পাশ করতে পারলো না। এর পুরো দায়টাই কি ‘বকে’ যাওয়া ছাত্র-ছাত্রীদের।টিউশন কেন্দ্রিক পড়াশুনার গুনমান নিয়ে কেউ অাজ অার বেশি একটা ভাবেন না, নম্বরই এখন সবার পাখির চোখ। এবারেরর উচ্চমাধ্যমিকে সেই টার্গেট মিস করল ১ লক্ষ ২০ হাজার৯৯৩ জন ছাত্র ছাত্রী। এটা পরীক্ষা, লেখা পড়া শেখানোর পদ্ধতি, সিলেবাস পুরো বিষয়টিকেই প্রশ্ন চিন্হের মুখে দাঁড় করিয়ে দেয় না কি? অবশ্য কেউ যদি একে সমস্যা বলে মনে করে তবে। তা না হলে উচ্চমাধ্যমিকের এবার ফল প্রকাশের পর ষোল কলা পূর্ণ হল বলে ধেই ধেই করে নাঁচতে থাকুন। অানন্দে থাকতে ৬টাকাই যথেষ্ট।