নেতাদের কি ডায়েবিটিস হল!

পেট্রোপণের মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে সরব এরাজ্যের শাসক দল তৃণমূল। বিরোধী সরব টেলিভিশনের পর্দায়। অাপত্তির কিছু নেই। যে হারে পেট্রল- ডিজেলের দাম বেড়েছে তাতে সকলেরই প্রতিবাদে সামিল হওয়া উচিত। কিন্তু মুশকিল হচ্ছে ভাগাড়কাণ্ডের পর রেঁস্তোরায়  খদ্দের হচ্ছে না তবুও মরগির মাংসের দাম বেড়েই চলেছে। এর পিছনে দুটো তত্ত্ব থাকতে পারে। এক রেঁস্তোরা গুলিতে সরবরাহ করা সব মাংসই ভাগাড় থেকে যেত , এখন যাচ্ছে না তাই দাম বাড়ছে মুরগির মাংসের। দ্বিতীয় যুক্তি ঝোপ বুঝে কোপ মারছে পোলট্রি মালিক বা বড় কারবারিরা। দ্বিতীয় যুক্তিটাই বেশি বাস্তব সম্মত, কারণ সব রেঁস্তোরায় এতকাল ভাগাড়ের মাংস খাওয়ানো হয়েছে তা হজম করা কঠিন।

একই অবস্থা অালুর। গুদামে ঢুকতে না ঢুকতেই অালুর দাম কেজি প্রতি ২০- ২৫ টাকা। অথচ না শাসকদল, না বিরোধী কেউ এই নিয়ে সরব নন। পঞ্চায়েত ভোটের রাজনীতিতে অালুর অর্থ মিশেছে নিশ্চয়। কিন্তু এখনও! এরাজ্যের নেতাদের কি ডায়েবিটিস হল!