যাদবপুরের পড়ুয়াদের চাপে প্রবেশিকা বন্ধের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এল কর্তৃপক্ষ

প্রায় ৪৬ ঘন্টা ধরে টানা ঘেরাও করে রাখা হয়েছিল উপাচার্যকে,দাবি ছিল স্নাতক স্তরে প্রবেশিকা পরিক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসতে হবে।যাদবপুর বিশ্ব বিদ্যালয়ের ছাত্র সংগঠনগুলির সেই দাবি মানা হবে না বলে হুশিয়ারি দিয়েছিল কর্তৃপক্ষ।গতকালই শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন যাদবপুরের ছাত্ররা পড়াশুনো ছাড়া সবকিছুই করে।তবে বুধবার দুপুরের পড়েই সেই ছাত্র সংগঠনগুলির দাবি মেনে প্রবেশিকা পরিক্ষা বাতিলের ঘোষণা থেকে সরে এসে বিশ্ববিদ্যালয়ের অচলাবস্থা দূর করার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।আপাতাত শ্নাতক স্তরে ভর্তির জন্য প্রবেশিকা পরিক্ষার ব্যবস্থা বহাল থাকছে।প্রতিবাদী ছাত্র সংগঠনগুলির তরফে দাবি করা হয়েছে,যাদবপুরের ছাত্ররা মেধা নিয়ে কোন আপষ করে না,লেখা পড়ার মানকে ধরে রাখতেই তারা প্রবেশিকা পরিক্ষা বহাল রাখার পক্ষে লড়াই করেছেন।ছাত্রদের অভিযোগ প্রবেশিকা পরিক্ষা তুলে দিয়ে রাজনৈতিক প্রভাব ও অর্থের প্রভাবে যাদবপুরে যে কাউকে ঢুকিয়ে দেওয়ার প্রয়াস চলছে,তারা সেই প্রয়াসেরই বিরোধিতা করেছেন।প্রতিবাদী ছাত্রদের পক্ষ থেকে রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রীকে বলা হয়েছে,যাদবপুরের ছাত্ররা পড়াশোনা করে বলেই তাঁদের মাথাটা পরিষ্কার,তাই সরকারের যে কোন দুরোভিসন্ধি তারাই সবার আগে ধরে ফেলেন।