৩৪৩টি অপ্রয়োজনীয় ফিক্সড ডোজ কম্বিনেশন নিষিদ্ধ করতে চলেছে কেন্দ্র। প্রশ্ন কবে?

৩৪৩টি অপ্রয়োজনীয় ফিক্সড ডোজ কম্বিনেশন ওষুধকে নিষিদ্ধ করতে চলেছে কেন্দ্র। এখনো পর্যন্ত নামি দামি কোম্পানির এই সব চিকিত্সকরা লিখছেন অার ওষুধ অামি- অাপনি খাচ্ছি। দীর্ঘদিন ধরে ওষুধ বিজ্ঞানের অান্দোলনের  সঙ্গে যুক্ত কর্মীরা দাবি জানিয়ে অাসছিলেন একাধিক ওষুধের কম্বিনেশনে তৈরি এই সব ওষুধের ফলে ক্ষতি হচ্ছে রোগীর। ২০১৬ সালের মার্চ মাসে কেন্দ্রেস গঠিত  চন্দ্রশেখর কোটাক কমিটির সুপারিশ মেনে কেন্দ্রের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক ৩৪৯টি ফিক্সড ডোজ কম্বিনেশন ওষুধকে  নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্ট যায় বড় বড় ওষুধ কোম্পিগুলি। সুপ্রিম কোর্ট বিষয়টিকে বিশেষজ্ঞ কমিটির কাছে পাঠায়। বুধবার সেই কমিটি ৩৪৯টির মধ্যে ৩৪৩টি ওষুধকেই নিষিদ্ধ করার পক্ষে মত দিয়েছে। কয়েকদিনের তাদের রিপোর্ট কেন্দ্রের কাছে পাঠাবে বিশেষজ্ঞ কমিটি। কেন্দ্র যদি সঠিকভাবে সিদ্ধান্ত লাগু করে তাহলে ২০০০ কোটি টাকার এই  ওষুধের বাজারের বড় বিক্রেতারা অ্যাবট, সান, ম্যানকাইন্ড,লুপিন, ইপকা, ম্যাকলয়েড, অ্যালকেম, গ্লিনমার্ক সহ একাধিক সংস্থার মুনাফায় জোর ধাক্কা লাগবে বলে ওয়াকিবহাল মহলের ধারনা।  এখানেই শেষ নয অারো ৯৪৪টি এই ধরনের ওষুধ  অপ্রয়োজনীয় বলে নির্দিষ্ট করেছে কেন্দ্রের গঠিত কোটাক কমিটি। তাদের কি হবে?  সেই বিষয়টি এখনও পর্যন্ত ঝুলে রয়েছে। অপ্রয়োজনীয় ফিক্সড ডোজ ওষুধ বাতিল করার  দাবিতে  ২০০৩ সাল থেকে  মামলা সুপ্রিম কোর্ট চলছে। এখন দেখার   নিজেদের সিদ্ধান্ত ৱাগু করতে  অার কতদিন সময় নেবে সরকার।

,