কাশ্মীরে ধারা ৩৫এ বাতিলের প্রয়াসের বিরুদ্ধেও সরব তরুণ IAS শাহ ফয়সাল

জম্মু -কাশ্মীরে ৩৫এ ধারা বাতিলের প্রয়াসের বিতর্কে নিজেকে যুক্ত করে ফের রাষ্ট্রের চক্ষুশূল হলেন ২০০৯ সালের অাএএস ব্যাচের শীর্ষে থাকা শাহ ফয়সাল। ফয়সাল বলেছেন ৩৫এ ধারা বাতিল করা মানে নিকাহনামাকে বাতিল করা, অর্থা্ত সম্পর্ক চ্ছেদ করা। ফয়সালের ইঙ্গিত স্পষ্ট। যদিও ফয়সাল জানিয়েছেন ভারতের সার্বভৌমত্ব ও অখণ্ডতার বিষয়টি প্রশ্নাতীত। বর্তমানে স্টাডি লিভে অামেরিকায় গবেষণারত ফয়সাল।  গত জুলাই মাসে ফয়সালের করা অন্য একটি টুইটও বিতর্ক সৃষ্টি করেছিল। দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় ধর্ষণের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে একটি ব্যাঙ্গাত্মক টুইট করেছিলেন। ফয়সাল লিখেছিলেন “‘Patriarchy + Population + Illiteracy + Alcohol + Porn + Technology + Anarchy = Rapistan!”। অার এর জেরেই তার বিরুদ্ধে কেন্দ্রের নির্দেশে তদন্ত শুরু করেছে জম্মু-কাশ্মীরের সরকার। তার কাজের সততা ও নিরপেক্ষতা নিয়েই নাকি প্রশ্ন উঠেছে। সরকারের শোকজের চিঠিকে বসের পাঠান প্রেমপত্র বলে মজা করে ফয়সাল টুইট করে জানিয়েছেন উপনিবেশিক মানসিকতায় পুষ্ট চাকরির শর্তকে ঢাল করে অামার করা দক্ষিণ এশিয়ার ধর্ষণের সংস্কৃতির বিরুদ্ধে মন্তব্যকে কন্ঠরোধ করা হচ্ছে গণতান্ত্রিক ভারতে। 

 ধারা ৩৫এ বাতিলের উদ্যোগের প্রতিবাদে রবিবার কাশ্মীর উপত্যকায় বন্ধ পালিত হয়। সোমবার বাতিলের অার্জির প্রেক্ষিতে শুনানি শুরু সুপ্রিম কোর্টে। বর্তমানে ৩৫এ ধারার দৌলতে রাজ্যের কারা স্থায়ী নাগরিক তা স্থির করার অধিকার রাজ্য বিধানসভার রয়েছে। এর জেরে রাজ্যে দেশের অন্যপ্রান্তের লোকেদের স্থায়ী  সম্পত্তি কেনা ও চাকরিতে বিধিনিষেধ  রয়েছে। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশের মতে ২০১৯ সালে র নির্বাচনের অাগে বিভিন্ন সংবেদনশীল ও ধর্মীয়  বিষয় সুড়সুড়ি দিয়ে মেরুকরণ করতে চাইছে বিজেপি, অার ধারা ৩৫এ বাতিলের অার্জি তারই অঙ্গ। সবক্ষেত্রে সর্বোচ্চ অাদালতকে ঢাল হিসাবে ব্যবহার করতে চাইছে দল।