ভাঙড়ে পাওয়ার গ্রিড হচ্ছে না দাবি আন্দোলনকারীদের

ভাভড়ে প্রশাসনিক চাপে পাওয়ার গ্রিড বিরোধী আন্দোলন পিছু হটছে কিনা,সরকার ঘুর পথে পাওয়ার গ্রিড তৈরির লক্ষ্যে এগুচ্ছে কিনা,নানা জনের সেই সংশয়কে উড়িয়ে দিয়ে ভাঙড়ের আন্দোলনকারীদের পক্ষ থেকে শনিবার দৃঢ়তার সঙ্গে দাবি করা হয়েছে ভাঙড়ে সরকারের পাওয়ার গ্রিড তৈরির প্রয়াসকে প্রতিরেধ করতে তাঁরা সক্ষম হয়েছেন।প্রশাসনের কাছে পাওয়ার গ্রিড তৈরি বন্ধ করার যে দাবি গ্রমবাসীরা করেছিলেন তা প্রশাসন মেনে নিয়েছে।জমি আন্দোলনের নেতা মির্জা হাসান শনিবার জানান ভাঙড়ে পাওয়ার গ্রিড না হতে দেওয়াটাই তাদের মুখ্য দাবি ছিল,সেই দাবি তাঁরা আদায় করতে পেরেছেন।সরকার পাওয়ার গ্রিড়ের পরিবর্তে এখন ঐ এলাকায় শুধুমাত্র একটা আঞ্চনিক সাব স্টেশন তৈরি করবে।মির্জা হাসান আর জানান এলাকায় পাওয়ার গ্রিড তৈরির জন্য যে মেশিন আনা হয়েছিল,যা পরিবেশের পক্ষে ক্ষতিকর বলে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছিলেন,সে গুলি এলাকা থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য তারা দাবি করেছেন,প্রশাসন তা মনে নিয়েছে বলে মির্জা হাসান দাবি করেন।ভাঙড় আন্দোলনের আর এক নেতা পরিষ্কার জানান পাওয়ার গ্রিড হবে না প্রশাসন এই দাবি মেনে নেওয়ার পরেই আলোচনার জন্য বসতে তারা রাজি হয়েছেন।ভাঙড়ে সরকার পাওয়ার গ্রিড তৈরির পরিকল্পনা থেকে সরে এসেছে,সরকারি তরফে এরকম কোন ঘোষণা এখনও কেন দেওয়া হয়নি,সে প্রশ্ন করা হলে ঐ নেতা জানান আলোচনা এখনও শেষ হয়নি তাই চূড়ান্ত ঘোষণা সরকার করে নি,তেবে তাঁরা যে পাওয়ার গ্রিড হবে না এই আশ্বাসের ভিত্তিতেই আলোচনা করছেন সে কথা স্পষ্ট জানান ভাঙড় আন্দোলনের ঐ নেতা।শনিবারও প্রশাসনিক বৈঠক হয়,সেখানে আন্দোলনকারীদের পক্ষে ৫৪জন উপস্থিত থেকে গ্রামবাসীদের দাবিদাওয়া পেশ করেছেন।পাওয়ার গ্রিড প্রতিরোধ করাকে এই আন্দোলনের জয় বলে দাবি করে জমি আন্দোলনের নেতা মির্জা হাসান বলেন সরকার যে পাওয়ার গ্রিড তৈরি থেকে বিরত থাকছে বিগত প্রশাসনিক বৈঠকের মিনিটস এ তার স্পষ্ট উল্লেখ আছে।দক্ষিণ চব্বিশ পরগণার জেলা শাসকের স্বাক্ষর করা সেই মিনিটস বুক তারা গ্রামবাসীদের কাছে দেখিয়েছেন বলেও দাবি করেন মির্জা হাসান।

,