অাধারকে গণনজরদারির কর্মসূচীর সঙ্গে তুলনা করলেন স্নোডেন

অাধার কর্মসূচীকে গণনজদারির সঙ্গে তুলনা করলেন মার্কিন গোপনতথ্য পর্দাফাঁসকারী এডওয়ার্ড স্নোডেন। স্নোডেন মনে করেন ভারত সরকার সত্যিই যদি জনস্বার্থের জন্য অাধার কর্মসূচী গ্রহণ করে থাকে তাহলে যারা একে জনস্বার্থ ছাড়া অন্য কাজে ব্যবহার করবে তাদের কঠোর শাস্তি দিতে হবে। গত সপ্তাহে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জয়পুরে এক টক জার্নালিজম অনুষ্ঠানে এই মন্তব্য করেন স্নোডেন।

এদেশে অাধার নিয়ে একাধিক প্রশ্ন  ইতিমধ্যেই উঠতে শুরু করেছে। অাধার তথ্য কতটা সুরক্ষিত তানিয়ে সংশয় দেখা দিচ্ছে বারবার। একাধিক সরকারি ওয়েবসাইটেই লক্ষ লক্ষ অাধার তথ্য ফাঁস হয়েছে। হ্যাকাররা সরকারের উদ্দেশ্যে সরাসরি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে জানিয়েছে  অাধার তথ্য সুরক্ষিত নয়। অস্বস্তিতে ফেলে  trai চেয়ারম্যানের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা জমা করে দিয়েছে হ্যাকারা। সরকার একবার বলছে অাধার সম্পূর্ণ সুরক্ষিত একবার বলছে সবাকেই অাধার নম্বর জানাবেন না। ইতিমধ্যেই মোবাইল ফোন ও অাধার লিঙ্ক করার জন্যা পাড়ার দোকানদারের কাছে গিয়ে কোটি কোটি মানুষ নিজের বুড়ো অাঙ্গুলের ছাপ দিয়ে এসেছে। তার কী হবে? সরকার যদি নজরদারি চালাতেই না চায় তাহলে মোবাইল নম্বরের সঙ্গে অাধার লিঙ্কের সময় বুড়ো অাঙ্গুলের ছাপ দেওয়ার সময় চুপ ছিল কেন? ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্ট অাধার লিঙ্ক করার সময় বুড়ো অাঙ্গুলের ছাপ লাগে না অথচ টেলিকম কোম্পানিগুলোর কাছে একধাক্কায় কোটি কোটি মানুষের বায়োম্যাট্রিক ডেটা জমা হয়ে গেল। এই কি এমনই এমনই। তা অাধার নিয়ে গণ নজরদারির যে অাশঙ্কা স্নোডেন প্রকাশ করেছেন তা উড়িয়ে দেওয়ার নয়।