প্রতিবন্ধী আরেফুল মল্লিকের স্বেচ্ছামৃত্যুর আর্জিতে উদ্বিগ্ন নাগরিক সমাজ

অর্ধাহার অনাহারের জ্বালা থেকে মুক্তি পেতে স্বেচ্ছামৃত্যুর আর্জি জানিয়ে,কেশপুরের প্রতিবন্ধী যুবক আরেফুল মল্লিক যে ভাবে নবান্নে চিঠি দিয়েছেন তাতে চরম উদ্বেগ প্রকাশ করে অবিলম্বে তাঁর পরিবারের পাশে সরকারকে দাঁড়াবার আবেদন করলেন রাজ্যের নাগরিক সমাজের একাংশ।মঙ্গলবার কলকাতা প্রেস ক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলন করে বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ রতন খাসনবিশ,নাট্যকার চন্দন সেন,সাহিত্যিক কিন্নর রায়,আইনজীবী ভারতী মুতসুদ্দী সহ সমাজের নাগরিক সমাজের একাংশ এই ঘটনাকে সমাজিক দায়বদ্ধতার নিরিখে বিবেচনার জন্য আবেদন করেন।এঁদের মধ্য থেকে ৬ সদস্যের এক প্রতিনিধি দল সম্প্রতি কেশপুরে গিয়ে দুঃস্থ অসহায় আরেফুল মল্লিকের সঙ্গে দেখা করে আসেন।এঁদের পক্ষ থেকে জানানো হয়,পরিবারে ৬জন সদস্য নিয়ে আরেফুল চূড়ান্ত যন্ত্রনায় দিনযাপন করছেন।তাঁর চোখ ভুল চিকিত্সার ফলে অন্ধ হয়ে যেতে বসেছে।প্রাইভেট টিউশানি করে দিনযাপন করা আরেফুল এখন চরম আর্থিক সংকটের মুখে,তাঁর বেঁচে থাকার যাবতীয় ইচ্ছে ক্রমেই চলে যাচ্ছে।এমতবস্থায় জনকল্যানকর রাষ্ট্রেরই উচিত তাঁর পাশে দাঁড়ান।সরাকার অবিলম্বে আরেফুলের পাশে দাঁড়াক এই দাবিতে নাগরিকদের সোচ্চার হতে আহ্বান জানান বিশিষ্টজনরা।

, ,