দেউলিয়ার মুখে GSPC, ২০ হাজার কোটি ব্যাঙ্ক ঋণ নেওয়ার ১৩ বছর পরও হয়নি তেল উত্পাদন , কাঠগড়ায় মোদিকে তুললো কংগ্রেস

রাফালের পর এবার গুজরাট স্টেট পেট্রোলিয়াম করপোরেশন বা GSPC-র দুর্নীতির অভিযোগ তুললো কংগ্রেস। কাঠগড়ায় নরেন্দ্র মোদি। CAG  রিপোর্টকে হাতিয়ার করে কংগ্রেসের তরফে অভিযোগ করা হয়েছে ২০০৫ সাল থেকে বিভিন্ন ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নিয়ে এখনও পর্যন্ত ২০ হাজার কোটি টাকা খরচ করলেও গুজরাট সরকারের মালিকানাধীন রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা GSPC কোন গ্যাস বা খনিজ তেল উত্তোলন করতে পারেনি। কংগ্রেসের তরফে জয়রাম রমেশ এক সাংবাদিক বৈঠকে অভিযোগ করেন তেল উত্তোলনের কাজে এমন সব কোম্পানিকে বরাত দেওয়া হয়েছে যাদের কোন পূর্ব অভিজ্ঞতাই নেই এই কাজে। গুজরাটের এক কাপড় ব্যবসায়ীকেও বরাত দেওয়া হয়েছে বলে দাবি রমেশের। অাজ পর্যন্ত গ্যাস বা তেল উত্তোলন না হলেও  ২০০৫ সালে মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঘোষণা করেছিলেন GSPC গ্যাসের ভান্ডার অাবিষ্কার করেছে রাজ্যে। কল খুললে জল না পড়লেও তেল ও গ্যাস বের হবে। ১৩ বছর পর GSPC  দেউলিয়া হতে বসেছে। রমেশ জানিয়েছেন নতুন দেউলিয়া অাইন অনুযায়ী কোন কোম্পানি যদি ২০০০ কোটি টাকা ব্যাঙ্ক ঋণ খেলাপি করে তাহলে (৩১ মার্চের পর থেকে ) ১৮০দিন পরে তাকে দেউলিয়া ঘোষণা করতে হয়।  এই মর্মে  রিজার্ভ ব্যাঙ্ক এক সার্কুলার জারি করে ২০১৮ সালের ২ অগস্ট। অার নজিরবিহীনভাবে এলাহবাদ হাইকোর্টে গিয়ে কেন্দ্র জানায় তারা রিজার্ভ ব্যাঙ্কের সার্কুলারের বিরোধিতা করছে। তাদের মতে GSPC কে ব্যাঙ্ক ঋণ পরিশোধের জন্য অারো ১৮০ দিন সময় দেওয়া হোক। কংগ্রেসের অভিযোগ অারবিঅাইয়ের সার্কুলারের বিরুদ্ধে অাদালতের দ্বারস্থ হয় অাদানি গোষ্ঠী। অার সেখানেই রিজার্ভ ব্যাঙ্কের সার্কলারের বিরোধিতা করে কেন্দ্র।

GSPC  বকেয়া ব্যাঙ্ক ঋণের অঙ্ক ১২ হাজার কোটি টাকারও বেশি। তাই   GSPCকে  ২৭ অগস্ট বিকেল ৫টার পর স্টেট ব্যাঙ্কের দেউলিয়া ঘোষণা করা উচিত বলে মনে করেন কংগ্রেস নেতা। তবে ব্যাঙ্কের উপর চাপ দেওয়া হচ্ছে ঋণ পরিশোধের মেয়াদ বাড়িয়ে দেওয়ার বা ঋণ পুনর্গঠন করার। যে ক্যাগ রিপোর্টকে হাতিয়ার করে কংগ্রেস সরকারের  বিরুদ্ধে  দুর্নীতির অভিযোগ করেছিল বিজেপি এবার তার রিপোর্টেই কাঠগড়ায বিজেপির রাজ্য সরকার। প্রশ্নের মুখে স্বয়ং নরেন্দ্র মোদি। এখন দেখার GSPC নিয়ে অার্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ করছে কংগ্রেস তা কতদূর নিয়ে যেতে পারে  দল।

, ,