বাংলাদেশে খুন সাংবাদিক

বাংলাদেশে আবার স্বাধীন মুক্তমনা সাংবাদিককে খুন করার ঘটনা ঘটল। মঙ্গলবার রাতে  বাংলাদেশের একটি টিভি চ্যানেলর সাংবাদিক সুবর্ণা আখতার(৩২) নদীকে তাঁর বাড়ির মধ্যে ঢুকে একদল দুষ্কৃতী নির্মমভাবে কোপাতে থাকে। কুপিয়ে রক্তাক্ত সুবর্নাকে ফেলে রেখে দুষ্কৃতীরা বাইকে চড়ে চম্পট দেয়। ঢাকা থেকে ১৫০ কিমি দূরে পাবনা জেলার রাধানগরে থাকতেন সুবর্ণা।  প্রতিবেশীরা রক্তাক্ত সুবর্ণাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁকে চিকিত্সকরা মৃত বলে জানান। টিভি চ্যানেলে সাংবাদিকতা করার পাশাপাশি সুবর্না জাগ্রত বাংলা নামে একটি নিউজ পোর্টাল সম্পাদনা করতেন।এই পোর্টালে তিনি প্রগতিবাদী মুক্ত ভাবনার প্রসার ঘটাতে সচেষ্ট থেকেছেন বারাবর।সুবর্নার পরিচিতরা জানিয়েছেন নিজের স্বাধীন ভাবনা,যুক্তিবাদী বিচার ধারার জন্যই তিনি মৌলবাদীদের টার্গেট হয়ে উঠেছিলেন।কোন কিছুর বিনিময়তেই সুবর্না সাংবাদিকতার সততাকে বিকিয়ে দিতে রাজি হননি,নিজে মহিলা হওয়াতে মৌলবাদী সমাজে মহিলাদের সমস্যা নিয়ে তিনি অনেকবেশী সচেতন ছিলেন ও তার বিরুদ্ধে সোচ্চারও ছিলেন।এই মর্মান্তিক পরিনতি তারই ফল বলে মত দিয়েছেন সুবর্ণা পরিচিতরা।এর আগেও একাধিকবার বাংলাদেশে মুক্তমনা মানুষজনদের উপর আক্রমন নেমে এসেছে। এরকম আক্রমনের প্রথম বলি বছর দুই আগে অভিজিত রায়,মৌলবাদী দুষ্কৃতীদের সেই খুনের তালিকায় নতুন সংযোজন সুবর্না আখতার নদী।সুবর্না মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ হওয়া সত্ত্বেও বাংলাদেশের মুসলিম মৌলবাদীদের দ্বারা তাঁর খুনের এই ঘটনা প্রমাণ করছে কারোর ধর্ম পরিচয় না, মুক্ত ও যুক্তিবাদী ভাবনাকেই অবরুদ্ধ করতে চায় সব ধর্মীয় মৌলবাদীরাই।