গণতন্ত্রে ভরসা নেই এদেশের নেতা নেত্রীদের মত তানিয়া ভরদ্বাজের

তিনি এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে প্রশ্ন করেছিলেন,জানতে চেযেছিলেন পার্কস্ট্রিট ধর্ষণ কান্ড নিয়ে তাঁর সহকর্মীদের অবস্থান একজন মহিলা হিসেবে কীভাবে তিনি মেনে নেন?এই প্রশ্ন শুনে মুখ্যমন্ত্রী তাঁকে মাওবাদী ক্যাডারের তকমা দিয়েছিলেন,অনুষ্ঠান ছেড়ে বেড়িয়ে গেছিলেন এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এরপর প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্রী তানিয়া ভরদ্বাজের বাড়িতে পুলিশি হানাদারি শুরু হয়েছিল।তানিয়া আর এ রাজ্যে থাকার ঝুঁকি নেন নি পড়াশুনা করতে চলে যান বিদেশে।বেশ কয়েক বছর আগের সেই ঘটনা যে তানিয়া ভুলতে পারেন নি তা বোঝা গেল মঙ্গলবার এক তরুণী গণিত গবেষককে পুলিশি হয়রানির পরিপ্রেক্ষিতে তানিয়ার প্রিতিক্রিয়া থেকে।মোদীকে ফাসিস্ত বলায় এক তরুণি গবেষককে যে ভাবে চটজলদি গ্রেপ্তারের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যায় তাতে উদ্বেগ জানিয়ে তানিয়া বলেন,কয়েকটা শব্দের গুঁতো খেয়েই এদেশের নেতারা যে ভাবে কাউকে জঙ্গি বলে দেগে দেয় তাতে বোঝা য়ায় এঁরা গণতান্ত্রীক দায়িত্ব পালন করাতে উপযুক্ত নয়,ক্ষমতা ধরে রাখতে যে কোন রকম বিরুদ্ধ মতকে আটকাতে চান।এঁরা ক্ষমতা হারাবার ভয় ভীত থাকেন সবসময়।এঁরা গণতন্ত্রের অর্থ তাত্পর্য বোঝেন না,ক্ষমতা বোঝেন,তাই যে কোন বিষয় ক্ষমতা প্রয়োগ করতে চান।তানিয়ার মতে এদেশের সব নেতা নেত্রীদের মধ্যেই এই মানসিকতা খুঁজে পাওয়া যাবে।

,