তেলেঙ্গানায় দলিত যুবকের হত্যার জন্য ১ কোটির সুপারি কিলার।

0
11

তেলেঙ্গানায় স্ত্রীর সামনে ২৩ বছরের যুবক, প্রণয়ের খুনে উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য । ১ কোটি টাকা দিয়ে দলিত জামাইকে খুন করতে ভাড়া করা হয়েছিল সুপারি কিলারদের। বিহার থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে চক্রের ৭জনকেই। প্রণয়ের  খুনিকে ২০০৩ সালে  গুজরাটের মন্ত্রী হারেন পান্ডিয়ার খুনে গ্রেফতার করা হয়। পরে  অবশ্য ছেড়ে দেওয়া হয় তাকে। এখানেই শেষ নয় এই চক্রের সঙ্গে পাকিস্তানি অাইএসঅাইয়েরও নাকি যোগ অাছে বলে জানাচ্ছে একটি সংবাদ সংস্থা। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী মেয়ের বাবা শুধু নালগোন্ডা জেলার ধনী ব্যবসায়ী নন রাজনৈতিক দিক থেকেও যথেষ্ট প্রভাবশালী। নিহত যুবতের স্ত্রী অমরুথা রাও জানিয়েছেন দলিত প্রণয়কে কোনদিনই মেনে নিতে পারেনি তাঁর পরিবার। তাঁদের বিয়ে ভাঙার জন্য রাজনৈতিক নেতাদের দিয়ে চাপ দিতো তার বাবা। প্রণয়ের পরিবার যথেষ্ট স্বচ্ছল, তার উপর প্রণয় নিজে ইঞ্জিনিয়ার হওয়া সত্ত্বেও দলিত হওয়ায় বর্ণ হিন্দুদের অত্যাচারের হাত থেকে রেহাই পেলেন না। ফলে এদেশে দলিত সম্প্রদায়ের মানুষের উপর অত্যাচার কী মাত্রায় অাছে তা এথেকে অান্দাজ করা যায় বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষকদের একাংশ।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে চেকঅাপের পর হাসপাতাল থেকে বেরােন মাত্রই চপার নিয়ে প্রণয়ের উপর হামলা করে এক দুষ্কৃতী। স্ত্রীর সামনেই মারা য়ান প্রণয়। স্বামীকে পরিকল্পনা করে খুন করেছে তাঁরই বাবা, অভিযোগ অমরুথার। এই প্রথম নয় এরকম ঘটনা দেশের নানা প্রান্তে হামেশাই ঘটছে। তবুও জাতপাতের অত্যাচারকে মানতে নারাজ শহুরে মধ্যবিত্তদের একটা বড় অংশ।