মার্কিন দাদাগিরির চাপে ইরান থেকে অামদানি করা জ্বালানী তেল শোধন করতে নারাজ IOC

মার্কিন হুঁমকির জেরে এবার ইরানের তেল পরিশোধন না করার সিদ্ধান্ত নিল চেন্নাই পেট্রোলিয়াম।রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থা IOC  এর অধীনস্ত সংস্থা হল চেন্নাই পেট্রোলিয়াম। অক্টোবর থেকে অার ইরান থেকে অামদানি করা কাঁচা জ্বালানী তেল পরিশোধন করবে না তারা। কারণ  রাষ্ট্রায়ত্ত বিমা সংস্থা ইউনাইটেড ইন্সুরেন্স তাদের জানিয়েছে ইরান থেকে অামদানি করা তেল পরিশোধন করা হলে তার কোন ঝুঁকি নেবে না বিমা কোম্পানি। সরারসরি ভারতের বিমা কোম্পানির উপর কোন নিষেধাজ্ঞা অামেরিকা জারি না করলেও ভারতীয় বিমা কোম্পানিগুলি অাবার মার্কিন  বিমা কোম্পানিগুলির সঙ্গে ব্যবসায়িক তারে বাঁধা। ইরানের সঙ্গে তেল সংক্রান্ত কোন বিমার দায় তারা নেবে না । অার তাই ভারতের সরকারের অধীন একটি সংস্থার পক্ষে অারেকটি রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার বিমা করা সম্ভব হবে না বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

 ইরান থেকে জ্বালানি তেল অামদানি করতে ভারতকে নিষেধ করেছিল অামেরিকা। ৪ নভেম্বরের পর  ইরান থেকে অন্য দেশের মত ভারতকেও তেল অামদানি পুরোপুরি বন্ধ করতে হবে বলে কার্যত হঁশিয়ারি দেয় অামেরিকা। অার  তা না করলে ভারতের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করবে মার্কিন প্রশাসন। মুখে যাই বলুক মার্কিন হুঁশিয়ারকে যে ভারতের উপেক্ষা করতে পারছে না তার প্রমাণ অাগেই মিলেছে। খবরে প্রকাশ জুন মাসে ইরান থেক ২৫ শতাংশ কম জ্বালানি তেল অামদানি করেছে ভারত। অার এবার অারেকটি রাষ্ট্রায়ত্ত তেল শোধন কোম্পানি জানিয়ে দিল অক্টোবর থেকে তারা অার ইরান থেকে অামদানি করা  তেল  শোধন করতে পারবে না। এর পরও জাতীয়তাবাদ ও জাতীয়তাবোধের প্রকাশের জন্য পাকিস্তান তো রয়েইছে। দেশভক্ত কিনা তার প্রমাণ দেওয়ার জন্য ভারত মাতার জয় বলতে হয়। না বললে সন্দেহ প্রকাশ করা হয় দেশপ্রেম নিয়ে। অথচ মার্কিন হুমকির সামনে দেশের রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাগুলো মাথা নোয়াচ্ছে অার সরকার চুপ করে বসে অাছে।  সেই সরকারের প্রধান দেশের পাহারাদারও বটে।  তাঁর ছাতি যেন কত ইঞ্চির?

,