মেডিকেল কলেজে আগুনে নষ্ট ৫ কোটির ওষুধ। হুড়োহুড়িতে মৃত এক রোগী

বুধবার সকাল আটটা নাগাদ আচমকাই কলকাতা মেডিকেল কলেজের  ওষুধের ঘরে আগুন ধরে যায়।,চারদিকে ছড়িয়ে পড়তে থাকে ধোঁয়া।গোটা মেডিকেল কলেজ চত্বরে জুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।আগুনের জেরে ৫ কোটি টাকার ওষুধ নষ্ট হয়েছে বলে অনুমান  করা হচ্ছে ।দমকল দ্রুত গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনলেও রোগীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।  এরই মাঝে  রোগীকে ওয়ার্ড থেকে সরাতে গিয়ে মারা যান শহিদুল ইসলাম মল্লিক নামে এক রোগী। অন্তত এমনটাই দাবি মৃতের ছেলের।  হাসপাতালের কর্মী ও স্থানীয় মানুষজন আগুন নেভাতে ও ভর্তি থাকা রোগীদের বাঁচাতে এগিয়ে আসে। এই প্রথম নয় এর অাগে ২০১৬ সালে বহরমপুরে মেডিকেলে অাগুন লেগে ২জনের মারা গেলেও হুঁশ ফেরেনি সরকারের। তাছাড়া ওষুধের স্টোর রুমে অাগুন লেগেছিল না লাগানো হয়েছিল তা নিয়েই সন্দেহের অবকাশ রয়েছে। কারণ ৫ কোটি টাকার ওষুধ কম নয়। এর পিছনে অন্য কোন কিছু নেই তো?  কী ভাবে আগুন লাগল তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়েছে।তবে একটা সরকারি হাসপাতালে কী ভাবে এরকম ঘটনা ঘটতে পারে তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠছে। এর আগে শহরেই আমরি হাসপাতালে যে ভাবে আগুনে পুড়ে ৯৩জনের মৃত্য হয়েছিল।  তারপর এই খাস কলকাতাায় সরকারি মেডিকেল কলেজে আগুন লাগার ঘটনা ঘটল।প্রশ্ন উঠছেই তাহলে কোন ঘটনা থেকেই কী আমাদের প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিরা শিক্ষা নেয় না!