দাঙ্গা বিরোধিতায় শহর থেকে ‘লং মার্চ ‘একদল তরুণের

৬ডিসেম্বর ধ্বংস করা হয়েছিল ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ। দেশ জুড়ে শুরু হয়েছিল দাঙ্গার আবহ।সেই সাম্প্রদায়িকতার বিষকে এখনও খুঁচিয়ে তোলার চেষ্টা চলছে ভোটের স্বার্থে।অন্যদিকে ৬ডিসেম্বরকে সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী দিবস বলে চিদ্নিত করে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও নাগরিক সংগঠন নানা কর্মসূচি নেয়।ডিসেম্বর মাসটাকে সাম্প্রদায়িকতার পক্ষে বিপজ্জনক বলে সারা মাস ধরেই নানা কর্মসূচি চলতে থাকে।তবে এই যাবতীয় কর্মসূচি থেকে একেবারে ভিন্ন পথে হেঁটে অভিনব এক উপায়ে সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধের কর্মসুচি নিল শহর ওশহরতলীর  একদল তরুণ পড়ুয়া। তাঁদের ঘোষণা ডিসেম্বর শুধু বাবরি ধ্বংসের মাস নয়,তাঁদের মতে ডিসেম্বর ভারতের সশস্ত্র বিপ্লবীদের স্মরণ করার মাস,কারণ এই মসেই ক্ষুদিরাম,প্রফুল্ল চাকীর জন্ম,এই মাসেই ইংরেজ শাসকের বিরুদ্ধে মহাকরণ অভিযান করে প্রাণ হারিয়েছিলেন বিনয় বাদল দীনেশ।তাই ভোট ভিখারি পার্টিগুলিকে কটাক্ষ করে  বামপন্থী এই তরুণ পড়ুয়াদের স্লোগান–ভোটের জন্য তোমাদের দরকার দাঙ্গা,তোমাদের দরকার রাম,আর আমাদের বুকে ক্ষুদিরাম।এই স্লোগানকে সামনে রেখে গত ৩ডিসেম্বর থেকে এক অভিনব লং মার্চ শুরু করেছে এই সব পড়ুয়ারা।রামরথ ও রামযাত্রার উল্টোপথে গিয়ে এই লং মার্চ সাইকেলে চেপে রাজ্যের শিল্পাঞ্চল গুলোতে ঘুরছে।ক্ষুদিরামের জন্মদিন ৩তারিখ থেকে এই সাইকেল আরোহীরা ব্যারাকপুর,টিটাগড়,ডানলপ,নদীয়া হয়ে ৬ডিসেম্বর এসে মিলছে কলকাতার সাম্প্রদায়িতকা বিরোধী মিছিলে।রাজ্যে শ্রমিক মহল্লাগুলোতে এই পড়ুয়ার দল জানিয়ে আসছে বিজেপি ও ভোটভিখারি পার্টিগুলো কীভাবে গরীব শ্রমজীবী মানুষের ঐক্যকে ভাঙতে ধর্ম আর হিংসা হানাহানিকে উসকে দিতে চায়।এই পড়ুয়াদের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে কোন হুমকিকে পড়োয়া না করে তারা বিজেপির রামরথ,ও রাজ্যের শাসক দলের পবিত্র যাত্রার বিরোদ্ধে আওয়াজ তুলেছেন।বিকৃত ইতিহাসের বিরুদ্ধে সরব হতে সমাজের সকল মানুষকে আহ্বান জানিয়েছেন এই তরুণদের উদ্যোগকে । অনেকেই মনে করছেন বিজেপির রথযাত্রার খবরের তলায় চাপা পড়ে গেলে এই সাহসী উদ্যোগের খবর।

,