অাউটডোরে রেশনকার্ড কি রোগী ছাঁটাইয়ের কৌশল?

মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী সরকারি হাসপাতালে অাউটডোরে দেখাতে গেলে এখন থেকে ডিজিটাল  রেশন কার্ড বাধ্যতামূলক করতে চলেছে রাজ্য সরকার। ১৫ জানুয়ারি থেকে এসএসকেএম ও ন্যাশনল মেডিকেলে পরীক্ষামূলকভাবে চালু হচ্ছে নতুন ব্যবস্থা। যাদের াতা থাকবে না তাদের মোবাইল নম্বর নথিভুক্ত করে করাতে হবে অাউট ডোরের টিকিট। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী এতে নাকি দেখানোর টিকিট করাতে সময় কম লাগবে তাতে উপকৃত হবেন রোগীরা।  কিন্তু সত্যি কি রোগী বা তার পরিবারের সুবিধার জন্য রাজ্য সরকারের নয়া ব্যবস্থা নাকি অসংখ্য রোগীকে এইভাবে সরকারি স্বাস্থ্য পরিষেবা থেকে বাদ দিতে চাইছে সরকার। প্রশ্নটা উঠছেই। কারণ বহু মানুষের ডিজিটাল রেশন কার্ড হয়তো নেই। তাদের কী হবে। গরীব রোগীদের সবার  মোবাইল নম্বর যে প্রত্যেকের থাকবে তারও কোন কথা নেই। তাহলে এরা সবাই কি বাদ পড়বেন সরকারি হাসপাতালের অাউটডোরের চিকিত্সরা সুবিধা থেকে? স্বাস্থ্য দফতরের  যুক্তি বর্তমান ব্যবস্থায় টিকিট করতে সময় বেশি লেগে যাচ্ছে তাই ডিজিটাল রেশন কার্ডের তথ্য স্কান করে নিয়ে তাড়াতাড়ি টিকিট করে দেওয়া সম্ভব হবে। তাছাড়া এতে রোগীর চিকিত্সা সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করে রাখা সম্ভব হবে। অাখেড়ে লাভ রোগীদেরই। কিন্তু ওয়াকিবহাল মহলের মতে সরকারি স্বাস্থ্য পরিষেবা থেকে রোগীদের বাদ দেওয়ার জন্যই নতুন নিয়ম করা হচ্ছে। তাদের মতে টিকিট কাউন্টারের সংখ্যা বাড়ালেই বর্তমান সমস্যার অনেকটা সমাধান হতে পারে।  দুটো পদ্ধতিও পাশাপাশি চলতে পারে।  তাতে যাদের রেশন কার্ড থাকবে তারা রেশন কার্ড অানলে  সময় খানিকটা বাঁচবে।  না থাকলে সরকারি চিকিত্সা থেকে বঞ্চিত হওয়ার অাশঙ্কা তৈরি হয় না।