অস্বাস্থ্যকর ম্যাগি নিয়ে কিছু স্বাস্থ্যকর প্রশ্ন

ফের অালোচনায় ম্যাগি। বৃহষ্পতিবার সুপ্রিম কোর্ট জাতীয় ক্রেতা সুরক্ষা ফোরামে ম্যাগির প্রস্তুতকারক নেসলের বিরুদ্ধে  কেন্দ্রের দায়ের করা ৬৪০ কোটি টাকার মামলাকে জাগিয়ে তুলেছে। ২০১৫ সাল থেকে সেই মামলা নাকি ঘুমোচ্ছিল। কারণ সুপ্রিম কোর্ট নাকি  স্থগিতাদেশ দিয়েছিল।

ম্যাগি বিপজ্জনক নতুন কথা নয়। ২০১৫ সালে যখন প্রথম বিষয়টি নিয়ে হইচই হল তখনই জানা যায় ম্যাগিতে সিসে ও মাত্রাতিরিক্ত এমসিজি নামক ক্ষতিকারক রাসায়নিক রয়েছে। সাময়িক সময়ের জন্য ম্যাগির বিক্রি বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়। তার পর ম্যাগির নমুনা পরীক্ষা করে সরকারি ল্যাব নাকি জানাল ম্যাগি নিরাপদ। অাবার বাজারে বিকোতে লাগলো ম্যাগি। অামরা খেতেও লাগলাম। হঠাত্ বৃহষ্পতিবার ৩ জানুয়ারি ২০১৯, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি প্রশ্ন করলেন ম্যাগিতে সিসে থাকলে অামরা তা খাব কেন? কিন্তু এতদিন খেলাম কেন ? কেন এখনও ম্যাগি বিক্রি হচ্ছে সব দোকানে?  কেন সুপ্রিম কোর্ট জাতীয় ক্রেতা সুরক্ষা ফোরামে মামলায় স্থগিতাদেশ দিয়েছিল ?  এই সব  প্রশ্নের  উত্তর পাওয়া বেশ কঠীন। মনে রাখতে হবে নেসলের হয়ে সুপ্রিম কোর্টে সওয়াল করছেন তৃণমূল সমর্থিত কংগ্রেস সাংসদ অভিষেক মনু সিংভী, যিনি দেশের মধ্যে সব থেকে বেশি অায়কর প্রদানকারী অাইনজীবী। এরকম দামি অাইনজীবীকে যারা নিয়োগ করতে পারে তারা অাদালতে মামলায় স্থগিতাদেশ পেতে কী না করতে পারে তা সহজেই অনুমেয়। অাপাতত সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ ক্ষতিপূরণের মামল জীবন পেলেও ম্যাগির মৃত্যু হয়নি। বোধ হয় কোনদিন হবেও না। তা খেয়ে অসংখ্য মানুষ ধীরে ধীরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লে পড়ুক।

,