রাজ্য কংগ্রেসের অবস্থান পরিষ্কার করতে দিল্লি গেলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি

0
5


দিল্লির নেতৃত্ব যখন মমতাকে সমর্থন করছে তখন রাজ্য কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে এ রাজ্যে ৩৫৬ ধারা জারির মত অবস্থা তৈরি হয়েছে।দিল্লি ও রাজ্য কংগ্রেসের এই দুই বিপরীত মেরুর অবস্থান নিয়ে অস্বস্তিতে থাকা প্রদেশ কংগ্রেস এ বিষয় সরাসরি কথা বলতে চায় কংগ্রেসের সভাপতি রাহল গান্ধীর সঙ্গে।এই কারণে মঙ্গলবার তড়িঘড়ি দিল্লি চলে গেলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র।মঙ্গলবার দিল্লি রওনা হবার আগে সাতদিন ডট ইনকে এক একান্ত আলাপচারিতায় প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি জানান,কোন ভাবেই এ রাজ্যে তৃণমূলের সঙ্গে কংগ্রেসের কোন সখ্য হওয়া সম্ভব নয়।রাজ্য কংগ্রেস তাদের বক্তব্য পরিষ্কার করতেই সর্বভারতীয় সভাপতির সঙ্গে কথা বলতে চেযেছিল,রাহুল গান্ধী তাঁকে ডেকে পাঠানোতে তিনি দুদিনের জন্য দিল্লি রওনা দিচ্ছেন মঙ্গলবার।সোমেনবাবু পরিষ্কার জানিয়ে দেন দিল্লির সরকারের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ গোটা দেশের সব কটি বিরোধী দল করছে,এ রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেসও সেই একই অভিযোগে অভিযুক্ত।তারাও বিরোধীদের বিরুদ্ধে লাগামহীন সন্ত্রাস চালিয়ে যাচ্ছে।এ রাজ্যে কংগ্রেসের সবচেয়ে ক্ষতি রাজ্যের শাসক দলই করেছে বলে অভিযোগ করে সোমেন বাবু বলেন তৃণমূলের সঙ্গে সখ্য করার অর্থ রাজ্যে কংগ্রেসের কর্মসূচিকে শিকেয় তুলে রাখা।কেন্দ্রীয় নেতারা সেটা চান না বলেই সোমেনবাবুর মত।রাজ্য কংগ্রেসের সবার মত শুনেই তিনি এই অবস্থানের কথা দিল্লিকে জানাবেন বলে দাবি করেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি।এখন দেখার প্রদেশ কংগ্রেসের মত শুনে রাজ্যের শাসক দল সম্পর্কে রাহুল গান্ধীর মতামতের কোন বদল হয় কিনা।তবে এরই মধ্যে রাহুল যে ভাবে সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরির সঙ্গে আলোচনা সেরে ফেলেছেন তাকে যথেষ্ট ইঙ্গিতপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মোহল।