স্যারিডনের উপর নিষেধাজ্ঞা বাতিল সুপ্রিম কোর্টের

0
2

ব্যথার ওষুধ ,১০০ কোটি টাকার ব্রান্ড, স্যারিডন বিক্রির উপর সরকারি  নিষেধাজ্ঞা বাতিল করল সুপ্রিম কোর্ট। অাগেই সরকারি নিষেধাজ্ঞার উপর    স্থগিতাদেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। স্যারিডন ওষুধ প্রস্তুতকারী পিরামল কোম্পানির অার্জি প্রেক্ষিতে কেন্দ্রকে তাদের মত জানাতে বলে সর্বোচ্চ অাদালত।  কিছুদিন  অাগে   স্কিন ক্রিম প্যানডার্ম সহ মোট ৩২৮টি অপ্রয়োজনীয় ফিক্সড ডোজ কম্বিনেশন ওষুধকে নিষিদ্ধ করে কেন্দ্র।  দীর্ঘদিন ধরে ওষুধ বিজ্ঞানের অান্দোলনের  সঙ্গে যুক্ত কর্মীরা দাবি জানিয়ে অাসছিলেন একাধিক ওষুধের কম্বিনেশনে তৈরি এই সব ওষুধের একটা বড় অংশই অপ্রয়োজনীয়।  কাফ সিরাপ, ঠান্ডা লাগালে ব্যবহার করা হয় এমন ওষুধের একটা বড় অংশই অপ্রয়োজনীয়। যার মধ্য সারি‌ডনও ছিল।

২০১৬ সালের মার্চ মাসে কেন্দ্রেস গঠিত  চন্দ্রশেখর কোটাক কমিটির সুপারিশ মেনে কেন্দ্রের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক ৩৪৯টি ফিক্সড ডোজ কম্বিনেশন ওষুধকে  নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্ট যায় বড় বড় ওষুধ কোম্পিগুলি। সুপ্রিম কোর্ট বিষয়টিকে বিশেষজ্ঞ কমিটির কাছে পাঠায়। বুধবার সেই কমিটি ৩৪৯টির মধ্যে ৩৪৩টি ওষুধকেই নিষিদ্ধ করার পক্ষে মত দিয়েছে। কয়েকদিনের তাদের রিপোর্ট কেন্দ্রের কাছে পাঠাবে বিশেষজ্ঞ কমিটি। কেন্দ্র যদি সঠিকভাবে সিদ্ধান্ত লাগু করে তাহলে ২০০০ কোটি টাকার এই  ওষুধের বাজারের বড় বিক্রেতারা অ্যাবট, সান, ম্যানকাইন্ড,লুপিন, ইপকা, ম্যাকলয়েড, অ্যালকেম, গ্লিনমার্ক সহ একাধিক সংস্থার মুনাফায় জোর ধাক্কা লাগবে বলে ওয়াকিবহাল মহলের ধারনা।  এখানেই শেষ নয অারো ৯৪৪টি এই ধরনের ওষুধ  অপ্রয়োজনীয় বলে নির্দিষ্ট করেছে কেন্দ্রের গঠিত কোটাক কমিটি। তাদের কি হবে? একে একে কি সবাই অাইনের ফাঁক দিয়ে গলে ফের ওয়ুধ দোকানে হাজির হয়ে যাবে?