বিধায়ক খুনের পর তৃণমূলের কাউন্সিলর গুলিবিদ্ধ, ভোটের অাগেই বাড়ছে হিংসা

দলের বিধায়কে খুনের কয়েকদিনের মধ্যেই এবার বজবজ পুরসভার ২০ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূলের কাউন্সিলর মিঠুন টিকাদারকে পার্টি অফিসে ঢুকে গুলি করলো কয়েকজন দুষ্কৃতী। হামলার দায় বিজেপি অাশ্রিত দুষ্কৃতীদের ঘাড়ে চাপাতে চাইছে তৃণমূল। অন্যদিকে তৃণমূলের দলীয় কোন্দলকেই দায়ী করেছেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা। রাহুলবাবু মিডিয়াকে জানিয়েছেন অাক্রান্ত তৃণমূল নেতা মিঠুন টিকাদর খুনের দায়ে কিছুদিন অাগে গ্রেফতার হয়েছিলেন। বর্তমানে ছাড়া পেয়েছেন। হামলার দায় নিয়ে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে কাদা ছোড়াছুড়ি চললেও একথা সত্যি তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দ্বের জেরে খুনোখুনি নতুন কিছু নয়। অতি সম্প্রতি, গত ডিসেম্বরই জয়নগরের দলীয় বিধায়ক বিশ্বনাথ দাশকে খুনের উদ্দেশ্যে তাঁর গাড়িতে হামলা চালান হয় বিধায়ক সেযাত্রা বেঁচে গেলেও ৩জন মানুষ প্রাণ হারান। কয়েকদিন অাগে কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিত্ বিশ্বাসকে প্রকাশ্যে গুলি করে খুন করা হয় কয়েকদিন অাগেই। লাভপুরে এক মহিলার অপহরণে যুক্ত নাকি দলেরই এক বিধায়ক। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের মতে ভোট যত এগিয়ে অাসবে এই খুনোখুনি ততই বাড়বে। গান্ধীজীর অহিংসা শুধু সভায় ভাষণের জন্যই তোলা থাকে এদেশে।