জেট না নিজেকে বাঁচাতে নরেশ গয়েলের ইস্তফা?

জেট এয়ারওয়েজের অচলাবস্থা কাটাতে অবশেষে সংস্থার পরিচালন সমিতি বা বোর্ড থেকে ইস্তফা দিলেন নরেশ গোয়েল ও তাঁর স্ত্রী। ব্যাঙ্কের শর্ততেই নরেশ গয়েলকে সরে যেতে হল বলে মিডিয়ার রিপোর্ট। অার্থিকভাবে ঋণে জর্জরিত জেট এয়ার ওয়েজ কর্মীদের বেতন দিতে পারছিল না গত ৩ মাস। লিজে নেওয়া বিমানের ভাড়া বা ব্যাঙ্ক ঋণের কিস্তিও পরিশোধ করতে না পারায় বাধ্য হয়ে একাধিক বিমানকে বসিয়ে দিতে হয়েছিল। ফলে বাতিল হচ্ছিল জেটের একাধিক উড়ানও। এই পরিস্থিতিতে সরকারের তরফে ব্যাঙ্কগুলোকে জেটের অার্থিক স্বাস্থ্য উদ্ধারের জন্য অনুরোধ( পড়ুন নির্দেশ দেওয়া হয়)। সেই মত স্টেট ব্যাঙ্ক তার ঋণকে শেয়ারে পরিণত করে পরিচালন সমিতিতে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল। সেই সঙ্গে এসবিঅাই এর নেতৃত্বে বেশ কয়েকটি ব্যাঙ্কের কনসোর্সিয়ামও জেটকে ১৫০০ কোটি টাকা নতুন করে ঋণ দিতে সম্মত হয়েছে। প্রশ্ন উঠছে জেটের অার্থিক দুরবস্থার জন্য দায়ী কে? শুধুমাত্র ইস্তফা দিয়েই কি নরেশ গয়েল তাঁর দায় এড়াতে পারেন ? মনে রাখতে হবে বন্ধ হয়ে যাওয়া কিংফিশার এয়ারের বিজয় মালিয়াও এই ব্যাঙ্কের ৯০০০ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে হজম করে বিদেশে পালিয়ে ছিলেন। তাই প্রশ্ন উঠছে নরেশ গয়েলকেও কি বাঁচানোর রাস্তা করে দিল কেউ?( জেটের অন্ধকার দিক জানতে পড়ুন A FEAST OF VULTURES – JOSY JOSEPH) যে নরেশ গয়েলের বিরুদ্ধে দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গে যোগাযোগের অভিযোগ উঠেছে তাঁকে এত সহজে রেহাই দিল কেন সরকার? কেন একটি বেসরকারি সরকার সেই বেসরকারি বিমান সংস্থাকে বাঁচাতে ঋণ দেওয়ার জন্য সরকারি ব্যাঙ্কগুলোকে নির্দেশ দিল কেন? এই অনেক কেনোর উত্তর এখনই পাওয়া না গেলেও জেটের কর্মীদের জন্য অাপাতত কিছুটা স্বস্তির খবর।

,